প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বাজেট বাস্তবসম্মত ও বাস্তবায়নযোগ্য হওয়া উচিত

আলমগীর ইসলাম সান্ত : প্রতি অর্থবছরেই দেশের উন্নয়ন কাজের জন্য নানান খাতে বাজেট করা হয়। তেমনি ভাবে শিক্ষাখাতেও বাজেট হয়। বাইরের দেশের তুলনায় আমাদের দেশে প্রতি অর্থবছরে শিক্ষাখাতে চাহিদামত বাজেট থাকে না। আর যে পরিমাণ বাজেট দেওয়া হয়, তাতে শিক্ষাখাতে নিয়ম করে ঘাটতি থেকে যায়। গত বছরের মূল বাজেটের ১৭.৫ শতাংশ এবং সংশোধিত বাজেটের চেয়ে ২৬ শতাংশ বড়। এই বাজেটের জন্য অর্থসংস্থান করতে ৩৪ শতাংশ বেশি রাজস্ব সংগ্রহের প্রস্তাব করা হয়েছে। প্রস্তাবিত রাজস্ব আয়ে পরোক্ষ কর প্রত্যক্ষ করের দ্বিগুণ নির্ধারণ করা হয়েছে।

তার অর্থ হলো এই বাজেট বাস্তবায়ন হওয়া মানে, রাজস্ব ব্যবস্থা আরো বেশি নিবর্তনমূলক হলো। ঢালাও ১৫ শতাংশ ভ্যাটসহ পরোক্ষ কর থেকে এই বর্ধিত রাজস্ব আদায়ের যে প্রস্তাব করা হয়েছে, তা সকল পণ্য ও সেবার দাম বাড়াবে। চলতি বছরের বাজেটও সঠিকভাবে বাস্তবায়িত হয়নি। তাই যত বড় আকারের বাজেটই দেয়া হোক না কেন, বাস্তবায়ন না করতে পারলে আকার বাড়িয়ে তৃপ্তির ঢেকুর তুলে কোনো লাভ নেই। বাজেট পেশের আগে দেশের বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ ব্যবসায়ী সংগঠন আসন্ন বাজেটে তাদের নিজেদের দাবির প্রতিফলন দেখতে চায়। বাজেট অবশ্যই বাস্তবসম্মত এবং বাস্তবায়নযোগ্য হওয়া উচিত।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে দেখা গেছে,বাজেটে যে ব্যয় বরাদ্দ দেওয়া হয় তা পুরোপুরি ব্যয় করা সম্ভব হয় না। আমাদের দেশে প্রতি বছরে নতুন নতুন বিশ্ববিদ্যালয় তৈরী হচ্ছে সেখানে সরকার বাজেট দিচ্ছে। সরকারের উচিত, বছর বছর নতুন প্রতিষ্ঠান না করে সঠিক জায়গায় বিনিয়োগ করে মানুষকে দক্ষ জনসম্পদে রূপান্তর করা। তাহলেই দেশ ও দেশের মানুষের কল্যাণ হবে।

পরিচিতি : শিক্ষার্থী, সরকারী তিতুমীর কলেজ /মতামত গ্রহণ : তাওসিফ মাইমুন/সম্পাদনা : মো. এনামুল হক এনা

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত