প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

টুপি বিক্রি হচ্ছে বেশি!

ডেস্ক রিপোর্ট: ৫০ বছরের বৃদ্ধ তজু মিয়া। তুর্কি টুপি পছন্দ করে মাথায় পরে দোকানদারকে বললেন ‘আয়না দাও।’ দোকানদার নেই জবাব দিলে ওই বৃদ্ধের জবাব, ‘আচ্ছা তুমিই আয়না হয়ে যাও। দেখো, আমাকে মানিয়েছে কিনা।’ দোকানদার, ‘হ্যাঁ’, বলার পর ৬০ টাকা দিয়ে টুপিটি কিনলেন তজু মিয়া।

তজু মিয়া বলেন, ‘ঈদের দিনে নতুন পাঞ্জাবির সঙ্গে পুরনো টুপি যেন একটু বেখাপ্পাই লাগে। তাই নতুন টুপি কিনতে এখানে আসা।’

শুধু তজু মিয়া নন, ঈদ আসতে এখনও ১৯ দিন বাকি থাকলেও বিভিন্ন বয়সী মানুষ ভিড় করছেন টুপির দোকানে। নতুন পাঞ্জাবির সঙ্গে নতুন টুপি পরতে আগে ভাগে কিনে নিয়ে যাচ্ছেন অনেকে।

সোমবার (২৮ মে) নগরের আন্দরকিল্লাহ শাহি জামে মসজিদের পাশে আতর ও টুপির বাজার ঘুরে দেখা গেল ক্রেতাদের উপচেপড়া ভিড়। ভিড়ের বাড়াবাড়িতে হাঁটার জো নেই। টুপি দোকানিদেরও যেন ফুসরত নেই কথা বলার। স্বল্প কথায় বেশি বিক্রির প্রবণতাই দেখা গেল। নতুন টুপির সঙ্গে অাবার অনেকে কিনে নিচ্ছেন পছন্দমতো জায়নামাজ ও সুরমাও।

বিক্রেতারা জানালেন, তুর্কি টুপি, পাকিস্তানি টুপি ও শেরে বাংলা টুপিই বিক্রি হচ্ছে বেশি। পাশাপাশি আকর্ষণীয় নকশী আর নানা কারুকাজের টুপির প্রতি নজর তরুণদের। এ ছাড়া দেশি টুপির নকশি ও কারুকাজের মান ভালো হওয়ায় কেউ কেউ দেশি টুপিও কিনছেন।

ওয়ার্ল্ড ফ্যাশনের মডেলিং পাঞ্জাবি বাজার দোকানি আব্দুর রহমান বাংলানিউজকে বলেন, গত বছরের তুলনায় এ বছর বিদেশি টুপি বেশি কিক্রি হচ্ছে। বর্তমানে প্রতিদিন দুই থেকে তিন হাজার টাকার শুধু টুপি বিক্রি হচ্ছে।
টুপি কিনতে আসা বেসরকারি ব্যাংক কর্মকর্তা ইসহাক মিয়া বলেন, ‘ঈদের দিনে নতুন পাঞ্জাবির সঙ্গে নতুন টুপি না থাকলে খুব বেমানান লাগে। তাই আগেভাগে টুপি কিনতে আসা। নবীর সুন্নত হিসেবে চমৎকার সুবাসের আতর কেনারও ইচ্ছা রয়েছে। সুত্র : বাংলা নিউজ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত