প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কোনো নিরীহ মানুষ বন্দুকযুদ্ধে মারা গেলে প্রমাণ দিন: কাদের

ডেস্ক রিপোর্ট: সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘কোনো নিরীহ মানুষ বন্দুকযুদ্ধে মারা গেছে? প্রমাণ দিন। যদি নিরীহ মানুষ হয়রানির শিকার হয়, যারা করবে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়ার বিষয় আছে। এ পর্যন্ত কেউ সেটাই বলতে পারেননি।’

রবিবার ফেনীর সার্কিট হাউসে আয়োজিত সভায় এসব কথা বলেন ওবায়দুল কাদের। এর আগে সেতুমন্ত্রী ফতেপুরে নির্মাণাধীন রেলওয়ে ওভারপাসের কাজ পরিদর্শন করেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘মাদকের সঙ্গে আর্মস (অস্ত্র) আছে। ড্রাগের সিন্ডিকেট আর্মসও ফলো করে। ক্ষয়ক্ষতি হবে এ আশঙ্কায় এত বড় ব্যবসা যার সে তা রক্ষা করার জন্য অস্ত্র নিয়ে যদি মোকাবিলা করে তখন কি র‍্যাব পুলিশ জুঁই ফুলের গান গাইবে? এটা আমাদের বুঝতে হবে।’

সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ফতেপুর রেলওয়ে ওভারপাসের একটি লেন আগামী ৫ জুন এবং আরেকটি লেন ১৫ জুন খুলে দেওয়া হবে। তখন আর মহাসড়কে যানজট থাকবে না।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘টোল আদায়ের সিস্টেম ত্রুটিপূর্ণ।’ মন্ত্রী যানবাহন চালকদের উদ্দেশে বলেন, ‘নির্ধারিত টোলের টাকা ভাঙতি রাখতে হবে যাতে টোলের সামনে সময় নষ্ট না হয়।’

এর আগে মহাসড়কে মন্ত্রীও রং সাইড দিয়ে গাড়ি চালালে জরিমানা করবেন বলে মন্তব্য করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। এসময় তিনি বলেন, মাদকবিরোধী অভিযানে যারা মারা যাচ্ছেন তারা প্রত্যেকেই মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। তারা দেশ ও জাতির শত্রু।

এ সভায় চট্টগ্রাম বিভাগের ১১টি জেলার ডিসি, এসপি, জনপ্রতিনিধি, চট্টগ্রাম বিভাগের ডিআইজি এবং সড়ক বিভাগের উর্ধতন কর্মকর্তা অংশ গ্রহণ করেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, মহাসড়কে যানজট কমাতে সরকার আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। আপনারা জানেন ফেনীর ফতেহপুর অংশে যে তীব্র যানজট সৃষ্টি হতো তা এখন নেই। এখানে ফতেহপুর ওভারপাসের ঢাকামুখী দুট লেন খুলে দেওয়া হয়েছে। অল্প কয়েক দিনের মধ্যে পুরোটা যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে। এখন কুমিল্লার দাউদকান্দি এলাকায় যানজটের সৃষ্টি হয়। সেটিও দ্রুত সমাধানের চেষ্টা চলছে।

মন্ত্রী বলেন, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চার লেন রাস্তার মেঘনা, গোমতী ও কাঁচপুরে এক লেন হয়ে যায়। ঢাকা থেকে আট লেন হয়ে আসলেও এখানে এক লেন। যানজন নিরসনে এ তিনটি সেতু নির্মাণের কাজ চলছে। এ তিনটি বিকল্প সেতু নির্মাণ হলে মহাসড়কে আর যানজট থাকবে না।

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ঈদের দশ দিন আগে থেকে ঈদের পাঁচ দিন পরে পর্যন্ত মহাসড়কে ভারী যানবাহর চলাচল ও খোড়াখুড়ি বন্ধ থাকবে।

তিনি বলেন, মহাসড়কের উল্টো পথে কেউ যেমন গাড়ী চালাতে পারবে না তেমনি ফিটনেস বিহীন গাড়ী মহাসড়কে চলাচল করতে পারবে না।

কাদের বলেন, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের জেলার ফতেহপুর ওভারপাসের নির্মাণ কাজ ঈদের আগেই শেষ হবে এবং ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের তিনটি বড় ব্রিজের নির্মাণ কাজ আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে শেষ হবে।

সভায় সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারী ও জাহান আরা বেগম সুরমা উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া চট্টগ্রাম, কুমিল্লা, নোয়খালী, ফেনী, লক্ষ্মীপুর ও কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার (এসপি) ও পরিবহন মালিক শ্রমিক নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত