প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, বাধ্য হয়ে খোলা চিঠি লিখছি’

নিজস্ব প্রতিবেদক : ‘কাঁপুনি দিয়ে জ্বর!’, ‘হাত রক্ত বের হয়ে ভেসে যাচ্ছে’,…‘সারা শরীরে রক্তের ছোপ ছোপ দাগ’।’ ‘আবারও দুই ব্যাগ রক্ত দরকার, এখনি’, ‘আলহামদুলিল্লাহ, রক্ত পেয়ে গেছি’।

আদ-দ্বীন উইমেন্স মেডিকেল কলেজের ২০১৩-১৪ সেশনের শিক্ষার্থী জারিন তাসনিম রাফার ফেসবুক স্ট্যাটাস এটা। চলতি বছরের নভেম্বরেই পড়াশোনা শেষে তার চিকিৎসক হওয়ার কথা। কিন্তু ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে এখন তিনি জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে। তাই চূড়ান্ত পরীক্ষার পড়া বাদ দিয়ে আর্থিক সহযোগিতা, রক্ত জোগাড়সহ বাঁচার আকুতি নিয়ে প্রতিনিয়ত ফেসবুকে পোস্ট দিচ্ছেন অসহায় রাফা। এমন বাস্তবতায় বাঁচার আকুতি নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাহায্য চেয়েছেন তিনি।

২১ মে প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে চিঠি লেখেন জারিন তাসনিম রাফা। এরপর থেকে ২৬ মে পর্যন্ত ২২টি পোস্ট করেছেন তিনি। প্রতিটি পোস্টেই তার বাঁচার আকুতি।

রাজধানীর বনশ্রী রামপুরার এম এ বাশারের মেয়ে জারিন তাসনিম রাফা। তার চিকিৎসা চলছে রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতালে। রাফার পক্ষে এখন ফোনে কথা বলাও সম্ভব হয় না। তাই ২৬ মে, শুক্রবার বিকেল ৫টার দিকে তার মোবাইল নম্বরে কল করলে রিসিভ করেন ছোট ভাই আরেফিন অর্ণব।
অর্ণব জানান, প্রায় আড়াই মাস আগে জারিন তাসনিম রাফার ব্লাড ক্যান্সার ধরা পড়ে। এরপর তাকে কেমোথেরাপি দেওয়া হয়। কিন্তু প্রথমবার কেমোথেরাপি কোনো কারণে ব্যর্থ হওয়ায় মাঝারি পর্যায় থেকে কিছুটা গুরুতর পর্যায়ে চলে যায় তার ক্যান্সার। রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতালে কিছুদিন আগে তৃতীয়বারের মতো কেমোথেরাপি দেওয়া হয়েছে তাকে।

রাফার পরিবার তাকে নিয়ে মাস দেড়েক আগে ভারতের মুম্বাই গিয়েছিলেন। সেখানকার চিকিৎসকরা তার বোনমেরু ট্রান্সফার করার পরামর্শ দিয়েছিলেন।

এ বিষয়ে অর্ণব জানান, মুম্বাইয়ের একটি হাসপাতালে রাফার বোনমেরু ট্রান্সফার করার কথা ছিল। কিন্তু রাফার পরিবারের কাছে তখন প্রয়োজনীয় টাকা না থাকায় তারা ফিরে এসেছিলেন। সেটাও প্রায় দেড় মাস পেরিয়ে গেছে।

রাফা এখন গুরুতর পর্যায়ে আছে। চিকিৎসকরা বলছেন, যত দ্রুত সম্ভব বোনমেরু ট্রান্সফার করাতে হবে তার।

ভারতের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, বোনমেরু ট্রান্সফার করতে ৬৫ থেকে ৭০ লাখ রুপি লাগতে পারে। রাফাকে চিকিৎসা করাতে গিয়ে তার পরিবার ইতোমধ্যে প্রায় সর্বশান্ত হওয়ার পথে। তাই রাফার চিকিৎসার জন্য তার পরিবার আর্থিক সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে। কিন্তু এখন পর্যন্ত সেখান থেকে সারা মেলেনি বলেও জানান অর্ণব।

প্রধানমন্ত্রীকে রাফার খোলা চিঠি

‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী!

আজ না পেরে বাধ্য হয়ে আপনার কাছে খোলা চিঠি লিখছি। আমি জানি না, ঠিক কোন ঠিকানায় আর ফোন নাম্বারে আমি আপনাকে খুঁজে পাব। তাই খোলা চিঠি লিখে দিলাম, কেউ যদি দয়া করে আমার এই আহাজারি আপনার নিকট পৌছায়!

আমার বয়স ২৩। আমি একজন ফাইনাল ইয়ারের মেডিকেল ছাত্রী। আজ আড়াই মাস ধরে মৃত্যুর সাথে লড়ছি! আমার একিউট মায়েলোব্লাস্টিক লিউকেমিয়া বা এক ধরনের ব্লাড ক্যান্সার, যা মধ্যম পর্যায়ে ধরা পড়ে। এখন আমাদের দেশের বিভিন্ন অভিজ্ঞ ও স্বনামধন্য ডাক্তাররা আমাকে বলেছেন, হাতে বেশি সময় নেই।

আমাকে দ্রুততম সময়ে অ্যালোজেনিক ট্রান্সপ্ল্যান্টে যেতে হবে, যা বাংলাদেশে এখনো শুরু হয়নি এবং আমাদের প্রতিবেশী দেশ ভারতে যার উন্নত চিকিৎসা রয়েছে। কিন্তু অত্যন্ত ব্যয়বহুল (৮০ লক্ষ টাকা) যা আমার মধ্যবিত্ত বাবা-মায়ের পক্ষে ব্যয় করা সম্ভব নয়।

কেমো নিয়ে আমরা সর্বশান্ত। আরও যত দেরি হবে, ততই কেমো খরচ এবং আমার মৃত্যুঝুঁকি বৃদ্ধি পাবে। আমার জীবনের শুরুতেই আজ মেঘের অন্ধকার নেমে এসেছে। হায়াত আল্লাহর হাতে, তবু চেষ্টা করে দেখতে যদি পারতাম! যদি আমার চিকিৎসাটা হতো! যদি আপনাদের মাঝে ফিরে আসতে পারতাম!

আপনি তো কত অসহায়ের পাশে ছিলেন, কত পিতা-মাতাহারা সন্তানের দায়িত্ব নিয়েছেন। আমিও এই দেশের এবং আপনারই সন্তান। তবে কেন আমাকে বুকে টেনে নেবেন না, এই দিনে?

আমি মানি, আমি বিখ্যাত সাবিনা ইয়াসমিন না, আমি ছোটখাটো একজন মেডিকেল ছাত্রী। তাই বলে কি আমার জীবনের কোনো মূল্যই নেই?

বেঁচে থাকলে দেশের জন্য আমি কি কিছুই করতে পারতাম না? আমিও তো মেডিকেল কমিউনিটিরই একজন। প্রতি মুহূর্তে আমি মৃত্যুর প্রহর গুনছি। এক-একদিন সময় আমার জীবনের প্রদীপ নিভিয়ে দিচ্ছে ধীরে ধীরে।

দেশমাতা! আপনি কি এই অসহায় মেয়েটির বেঁচে থাকার এই যুদ্ধে শামিল হবেন?

জারিন তাসনিম রাফা

আদ-দ্বীন উইমেন্স মেডিকেল কলেজ

সেশন:২০১৩-১৪।’

রাফাকে সহযোগিতায় আপনিও এগিয়ে আসতে পারেন। সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা-

ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নম্বর: Jarin Tasnime Rafa

সাউথ ইস্ট ব্যাংক, বনশ্রী শাখা

সঞ্চয়ী হিসাব নম্বর-০০১২৭০০০০০০০৯

ফোন নম্বর: ০১৫৩৪৯৫৩৯৩৫ (বিকাশ)

রকেট অ্যাকাউন্ট : ০১৫৩৪৯৫৩৯৩৫-৮

সূত্র : প্রিয়.কম

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত