প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ক্রসফায়ার চলতেই থাকবে, এর মধ্যেই নির্বাচন হবে: মান্না

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশব্যাপী চলমান মাদকবিরোধী অভিযানে নিহতদের নাম-পরিচয় গণমাধ্যমে প্রকাশের দাবি জানিয়েছেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। ক্রসফায়ারের আতঙ্কের মধ্যেই সরকার জাতীয় নির্বাচন আয়োজন করতে পারে বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি।

রোববার রাজধানীর একটি হোটেলে নবগ‌ঠিত যুক্তফ্রন্টের অন্যতম শরিক নাগ‌রিক ঐক্য আয়োজিত ইফতা‌র মাহ‌ফি‌লে মান্না এমন মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, ‘প্রমাণ ছাড়া যদি বদির (সরকারদলীয় সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদি) বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া না যায়, তাহলে যারা এই অভিযানে মারা গেছেন তাদের বিরুদ্ধে কী প্রমাণ প্রমাণ আছে সেটা প্রকাশ করতে হবে। অপেক্ষা করুন, দিন আসবে; এই রোজার মাসে বলছি- এর সঙ্গে জড়িতদের কাউকে ছাড়ব না।’

মান্না বলেন, ‘সাবেক একজন রাষ্ট্রপতি বললেন- সরকারি দলের একজন এমপি মাদকের সঙ্গে জড়িত। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বললেন, তার বিরুদ্ধে অভিযোগ তো অনেক পাই, কিন্তু প্রমাণ তো পাই না। যদি প্রমাণ ছাড়া বদির চুল ধরা না যায়, তাহলে প্রমাণ ছাড়া এখন পর্যন্ত যে ৬৪ জন গুলি করে মেরেছেন তার সঙ্গে জড়িতদের কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। জবাব দিতে হবে। বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে।’

ভয়ের সংস্কৃতি চালুর চেষ্টা চলছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, ‘কেউ কেউ আমাকে বলছেন- এরপর অস্ত্র উদ্ধারের নামে অভিযান হবে, পরে চোরাকারবারী ধরার নামে অভিযান হবে। ক্রসফায়ার চলতেই থাকবে। এর মধ্যেই নির্বাচন আয়োজন করা হবে।’

নিজেদের মধ্যে ভেদাভেদ, ছোটখাটো ভুল নিয়ে বিরোধ বাড়ানোর সুযোগ নেই মন্তব্য করে নাগ‌রিক ঐক্যর আহ্বায়ক বলেন, সবাই যাতে স্বাভাবিক মৃত্যুর গ্যারান্টি পাই, সেজন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে লড়াই করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, ‘সরকার অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন দেবে না। যদি দিতো তাহলে বেগম খালেদা জিয়ার একটি জামিন নিয়ে এভাবে টাল্টিবাল্টি করতো না।’

মান্না বলেন, শুধু যদি মনে করেন- জোট বেঁধে নির্বাচন করলেই আমরা জিতে যাব, তাহলেও পারবেন না। সেটা খুলনার নির্বাচনে শিক্ষা দিয়েছে। আর একটি শিক্ষা আমাদের গাজীপুরে দিতে চায়।

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি’র সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেন, আমরা খেলা এখনো শুরু করিনি। আসল খেলা হবে ময়দানে। মাঠে নামার আগেই ভয় পেয়ে গেছেন? আপনাকে মাঠও ছাড়তে হবে, দেশও ছাড়তে হবে। কোথায় যাবেন তা ঠিক করেন এখন।

তিনি বলেন, একটি মগের মুল্লুকের মধ্যে আমরা আছি। এরপূর্বে আমার ৬০ বছর রাজনীতিক জীবনে এমন অপশাসন আর দেখিনি। সদ্য শেষ হওয়া খুলনায় ভোর চুরি হয়নি, ডাকাতি হয়েছে। বেলা ১১টার পর কেউ ভোট দিতে পারেনি। শান্তিপূ্র্ণভাবে ১৩০টি সেন্টারে সিল মারা হয়েছে। এই সরকারের পরনে কাপড় নাই- নির্লজ্জ, বেহায়া।

আ স ম রব বলেন, সাবধান হোন। আমরা কী করতে পারে বাঙালি জানে। আমরা পতাকা উপহার দিয়েছি, জয় বাংলা উপহার দিয়েছি, বঙ্গবন্ধু উপহার দিয়েছি। কখনো মাথানত করিনি, করবও না। অপমান করেছেন অনেক। আর সহ্য হবে না। যেদিন ক্ষমতায় থাকবেন না সেদিন কী করবেন?

ইফতার মাহ‌ফি‌লে বক্ত‌ব্য দেন যুক্তফ্রন্ট ও বিকল্পধারা বাংলা‌দে‌শের চেয়ারম্যান ডা. একিউএম বদরু‌দ্দোজা (বি) চৌধুরী, বিএন‌পি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, দলটির স্থায়ী ক‌মি‌টির সদস্য মির্জা আব্বাস, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রা‌স্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, গণ‌ফোরামের নির্বাহী সভাপ‌তি অ্যাড‌ভো‌কেট সুব্রত চৌধুরী, জাতীয় সমাজতা‌ন্ত্রিক দলের সভাপ‌তি আ স ম আবদুর রব, নাগ‌রিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, বিপ্লবী ওয়ার্কাস পা‌র্টির সাধারণ সম্পাদক কম‌রেড সাইফুল হক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যাল‌য়ের শিক্ষক ড. আসিফ নজরুল প্রমুখ।

এতে অন্যদের মধ্যে উপ‌স্থিত ছি‌লেন বিএন‌পির স্থায়ী ক‌মি‌টির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান, সহ-সাংগঠ‌নিক সম্পাদক শামা ওবা‌য়েদ, বাংলা‌দেশ ন্যা‌পের মহাস‌চিব গোলাম মোস্তফা ভুইয়া, ন্যাশনাল ডে‌মো‌ক্রে‌টিক পা‌র্টির ভারপ্রাপ্ত মহাস‌চিব মঞ্জুর হো‌সেন ঈসা, সোনার বাংলা পা‌র্টির চেয়ারম্যান শেখ আবদুর নূর, ‌বিকল্পধারা বাংলা‌দে‌শের মহাস‌চিব মেজর (অব.) আবদুল মান্নান, আইনজীবী শাহদীন মা‌লিক প্রমুখ। সূত্র: পরিবর্তন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত