প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মুশফিকের ১৩ বছর

এম এ রাশেদ: বাংলাদেশের সাবেক টেস্ট অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমের জন্ম বাংলাদেশের ক্রিকেটের খুবই ক্রান্তিলগ্নে। মুশফিকের জন্ম যে সময়ে সে সময় বাংলাদেশ টেস্ট ক্রিকেটে মাত্রই পথচলা শুরু করেছে। বলতে গেলে টিম বাংলাদেশ সেসময় টেস্ট ক্রিকেটে শিখছে। ২৬ মে ২০০৫ সালে ক্রিকেটের তীর্থভূমি লর্ডসে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের ক্রিকেটের ইতিহাসের অন্যতম সেরা ক্রিকেটার মুশফিকুর রহিমের টেস্ট অভিষেক হয়। আজ ২৬ মে ২০১৮ শনিবার আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১৩ বছরে পর্দাপণ করেছেন মুশফিকুর রহিম।
আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মুশফিকের যখন জন্ম হয় সে সময় মাত্রই পাঁচ বছর বাংলাদেশের ক্রিকেটের বয়স। তখন বাংলাদেশ বেশিরভাগ ম্যাচেই ইনিংস ব্যবধানে হারতো। আর মুশফিকের অভিষেক ম্যাচেও এর ব্যতিক্রম ঘটেনি বাংলাদেশের। লাল-সবুজের দল স্বাগতিকদের কাছে হেরেছে ইনিংস ও ২৬১ রানে। মূলত উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান হলেও বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যান হিসেবে দলে সুযোগ পেয়েছিলেন বগুড়ার এ সন্তান। তখন দলে উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতেন খালেদ মাসুদ পাইলট।
ক্রিকেট ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে খুব তেতোর স্বাদ পেলেও পরবর্তীতে সুখকর স্মৃতিও আছে মুশফিকের। বর্তমানে বাংলাদেশ টেস্ট র‌্যাংকিংয়ের সাতে অবস্থান করছে। যেটি ২০০০ সালে টেস্ট অভিষেকের পরে সর্বোচ্চ র‌্যাংকিং টাইগারদের।
মুশফিক তার ক্যারিয়ারের এখন সর্বোচ্চ ফর্মে রয়েছেন। বাংলাদেশের হয়ে মুশফিক টেস্টে প্রথম ডাবল হান্ড্রেড করার গৌরব অর্জন করেন। মুশফিক টেস্টে ৬০ ম্যাচে ১১২ ইনিংসে ৩৪.৯৬ গড়ে করেন ৩৬৩৬ রান। যেখানে পাঁচ শতকে এবং উনিশ অর্ধশতক রয়েছে তার। তার সর্বোচ্চ ২০০।
ওয়ানডেতে ১৮৪ ম্যাচে ১৭০ ইনিংসে ৩২.৯৯ গড়ে মুশফিকের রান ৪৭১৮। তার সর্বোচ্চ ১১৭। মুশফিকের পাঁচ শতকের পাশাপাশি অর্ধশতক রয়েছে ২৮টি।
টি-টোয়েন্টিতে মুশফিকের ৬৮ ম্যাচে ৬০ ইনিংসে ২১.০৮ গড়ে করেন ১০১২ রান। ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ততম এ সংস্করণে মুশফিকের সর্বোচ্চ অপরাজিত ৭২। যেখানে তার অর্ধশতক ৪টি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত