প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বরগুনায় একজন শিক্ষক দিয়ে চলছে ৬টি ক্লাশের পাঠদান

শাহ্ আলী,বরগুনা: বরগুনায় জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. রবিউল হোসেন (ভারপ্রাপ্ত) সরকারী নির্দেশিকা অমান্য করে সদর উপজেলার কেওড়াবুনিয়া ইউনিয়নের হরিদ্রাবাড়ীয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৪ জন কর্মরত শিক্ষকের মধ্য হতে ১ জন শিক্ষককে সম্পূর্ন অবৈধ ভাবে বদলীর আদেশ প্রদান করেন বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। বর্তমানে ওই বিদ্যালয়ে ৬ টি পদ থাকা সত্বেও সেখানে মাত্র একজন শিক্ষক দিয়ে চলছে ৬ টি ক্লাশের পাঠদান। এতে চরমভাবে ব্যহত হচ্ছে কোমলমতি শিশুদের লেখাপড়া।

জানা যায়, হরিদ্রাবাড়ীয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৬ টি পদের মধ্যে প্রধান শিক্ষক এবং একজন সহকারী শিক্ষকের পদ শূন্য। বাকী ৪ পদের মধ্যে একজন মাতৃত্বকালীন ছুটিতে, একজন ডিপিএড প্রশিক্ষণে এবং বাকী ২ জনের একজন ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. কায়ছার আহম্মেদ ও সহকারী শিক্ষক আছমা আকতার কর্মরত ছিলেন। এই দু’জনের মধ্য হতে সহকারী শিক্ষক আছমা আকতারের আবেদনের প্রেক্ষিতে জেলা ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা কর্মকর্তা রবিউল হোসেন আছমা আকতারের স্বামীর স্থায়ী ঠিকানা আন্তঃ উপজেলা তালতলীর যে কোন বিদ্যালয়ে বিধি মোতাবেক বদলীর ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য সদর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার দপ্তরে তার আবেদন প্রেরন করেন।

এ নির্দেশনার প্রেক্ষিতে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জেলা শিক্ষা কর্মকর্তার দপ্তরে পাঠান। পরবর্তীতে সরকারী বিধিমালা উপেক্ষা করে সম্পূর্ন অবৈধ ভাবে আছমা আকতারকে তালতলী উপজেলার ছোট অংকুজানপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বদলীর আদেশ প্রদান করেন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রবিউল হোসেন। সূত্রে জানা যায়, সরকারী বিধি মোতাবেক প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৪ পোষ্ট থেকে প্রতিস্থাপন ছাড়া কখনই বদলী করা যাবেনা। বর্তমানে ১ জন শিক্ষক মো. কায়ছার আহম্মেদ হরিদ্রাবাড়ীয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পাঠদান করছেন ৬ টি ক্লাশের।

এ বিষয়ে হরিদ্রাবাড়ীয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক কায়ছার আহম্মেদ জানান, বর্তমানে আমি একাই স্কুল পরিচালনা করি, একাই রিটার্নএ স্বাক্ষর করি। তিনি বলেন, যখন ২ টা বাজে তখন মনে হয় আমার দুই কান দিয়ে গরম বের হয়। এটা আমার কাছে এখন বোঝা হয়ে দাঁড়িয়েছে। পরিনা সিএল ছুটি নিতে, স্কুল কার দায়িত্বে রেখে যাবো?
এই অবৈধ বদলীর ব্যাপারে জানতে চাইলে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মিজানুর রহমান জানান, আমি নতুন এসে যোগদান করেছি। এ বিষয়ে আমি কিছুই জানিনা। যদি এমনটি হয়ে থাকে তাহলে এর সঠিক তদন্ত সাপেক্ষে দ্রুত ব্যবস্থা নেব।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ