প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রাজধানীতে আবারো বিআরটিসি বাস চাপায় নারীর পা বিচ্ছিন্ন হওয়ার শঙ্কা

সুজন কৈরী : রাজধানীতে আবারো বিআরটিসির একটি বাসের চাপায় মোসা. আতিকুন্নেসা ওরফে স্বস্তি (৫০) নামের এক নারীর বাম পা থেঁতলে গেছে। তার পা কেটে ফেলতে হতে পারে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উত্তরার আব্দুল্লাহপুর মোড়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর বাসটি পুলিশ আটক করলেও এর চালক ও হেলপার পালিয়েছে। আহত ওই নারীকে প্রথমে উত্তরা আধুনিক হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখান থেকে তাকে পঙ্গু হাসপাতালে রেফার্ড করা হলেও ওই নারীর স্বজনরা তাকে একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যান। ভুক্তভোগী অর্ধশতবর্ষী ওই নারী উত্তরা ৯ নম্বর সেক্টরের ৩৩ নম্বর সড়কের ২০ নম্বর বাড়িতে থাকেন বলে জানা গেছে।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী আব্দুল্লাপুর মোড়ের ফুটপাতের দোকানী হাসেম বলেন, ওই নারী গাজীপুর থেকে বিআরটিসি বাসে করে উত্তরার আব্দুল্লাহপুরে আসেন। বাস থেকে নামার জন্য এক পা ফেলার পর অন্য পা ফেলার আগেই বাসটি চালিয়ে দেন চালক। ফলে ওই নারী সড়কে পড়ে গেলে তার বাম পায়ের উপর দিয়ে বাস চালিয়ে দেন। এতে ওই নারীর পায়ের হাঁটুর নিচে হাড় মাংস ভেঙ্গে এক হয়ে ঝুলে গেছে।

উত্তরা আধুনিক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসকরা বলেন, স্বস্তির বাম পায়ের হাঁটুর নিচ থেকে পুরো অংশই থেঁতলে গেছে। এছাড়াও পায়ের এঙ্গেল জয়েন্ট সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। পা কেটে ফেলা ছাড়া বিকল্প কোন উপায় নেই। তাকে পঙ্গু হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে।

স্বস্তির মেয়ে জামাই প্লাবন বলেন, বিআরটিসির একটি বাস চাপায় তার শাশুড়ির বাম পা বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। তাকে শ্যামলীর ট্রমা সেন্টারে ভর্তি করা হয়েছে।

আব্দুল্লাহপুরে কর্তব্যরত সার্জেন্ট তানভীর আহমেদ বলেন, দুর্ঘটনার পর বাসটিকে (নম্বর ঢাকা মেট্রো ব ১৪-৪৬৪৩) আটক করে উত্তরা পূর্ব থানা পুলিশের হেফাজতে দেওয়া হয়েছে।

উত্তরা পূর্ব থানার ওসি নূরে আলম সিদ্দিকি বলেন, বাসটি আটক করা হলেও চালক ও হেলপার পলাতক রয়েছে। এ ঘটনায় মামল দায়েরের প্রস্ততি চলছে।

উল্লেখ্য, গত ২৮ এপ্রিল রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে মেয়র হানিফ ফ্লাইওভারের ধোলাইপাড় ঢালে গ্রিন লাইন বাসের চাপায় পিষ্ট হয়ে রাসেল নামের এক প্রাইভেটকার চালকের বাঁ-পা বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। গত ২০ এপ্রিল রাতে বনানীর চেয়ারম্যানবাড়ি ফুটওভার ব্রিজের কাছে বিআরটিসি বাসের নিচে পড়ে রোজিনা নামের এক নারীর ডান পা হাঁটু থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এর আগে গত ৩ এপ্রিল কারওয়ান বাজারে সার্ক ফোয়ারার কাছে দুটি বাসের প্রতিযোগিতায় হাত হারান রাজীব হোসেন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ১৬ এপ্রিল তিনি মারা যান। গত ৫ এপ্রিল নিউমার্কেট এলাকায় দুই বাসের প্রতিযোগিতার মাঝখানে পড়ে দুই পায়ের চলার শক্তি হারিয়েছেন আয়েশা খাতুন (২৫) নামের এক তরুণী। এছাড়া গত ১০ এপ্রিল ফার্মগেটে বাসচাপায় পা থেঁতলে যায় র‍্যাংগস প্রপার্টিজের অভ্যর্থনাকারী ও বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী রুনি আক্তারের।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত