প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রোহিঙ্গা সংকটের প্রকৃত বাস্তবতা উপলবদ্ধি করতে পেরেছি : প্রিয়াঙ্কা

তরিকুল ইসলাম : কক্সবাজারে ঝুঁকিতে থাকা রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সহায়তায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশ সফররত ইউনিসেফের শুভেচ্ছা দূত বলিউড অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। একই সঙ্গে তিনি বলেছেন, গত বছর মিয়ানমারের রাখাইনে শুরু হওয়া রোহিঙ্গা সংকটের ভয়াবহ চিত্র এখানে এসে দেখার পর ( কক্সবাজার) রোহিঙ্গা সংকটের প্রকৃত বাস্তবতা উপলবদ্ধি করতে পেরেছি।

কক্সবাজার রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন শেষে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পরে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন বলিউড অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। রাজধানীর লা মেরিডিয়ান হোটেলে কঠোর নিরাপত্তা বলয়ের মধ্যে সংবাদ সম্মেলনটির আয়োজন করে জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক সহযোগিতা সংস্থা ইউনিসেফ।

সংস্থাটির শুভেচ্ছা দূত প্রিয়াঙ্কা চোপড়া বলেন, রোহিঙ্গাদের মুখে তাদের নির্যাতনের নির্মম বর্ণনা শুনেছি। যা তাদেরকে পরিবার এবং দেশ ছাড়তে বাধ্য করেছ। সেখানে দেখেছি অসহনীয় পরিস্থিতি। যেখানে এখন লাখ-লাখ শিশু বসবাস করছে।

বলিউড এ তারকা বলেন, শিশুদের সহায়তা এবং সুরক্ষা প্রদানে ইউনিসেফ ও তার অংশীদারদের পক্ষে সম্ভব এমন সব কিছুই তারা করেছে। কিন্ত আমাদের আরো অনেক কিছু করতে হবে।

বাংলাদেশে ইউনিসেফের প্রতিনিধি এডুয়ার্ড বেগবেদার বলেন, প্রতিনিয়ত সংকট বাড়ছে। তাই রোহিঙ্গা শিশুদের বিশাল চাহিদা ও নতুন ঝুঁকি মোকাবেলায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় তাদের দায়িত্ব এড়িয়ে যেতে পারেনা। এ ধরনের পরিস্থিতি মানুষের যাতে মনে থাকে এবং পদক্ষেপ নিতে তারা উৎসাহিত হয় সেটা নিশ্চিত করতে প্রিয়াংঙ্কা চোপরার মতো শুভেচ্ছা দূতদের সমর্থন অমূল্য।

জাতিসংঘের শিশুবিষয়ক তহবিলের (ইউনিসেফ) শুভেচ্ছাদূত হিসেবে চার দিনের সফরে গত সোমবার বাংলাদেশে আসেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। ব্রিটিশ রাজপরিবারের আমন্ত্রণে প্রিন্স হ্যারি আর মেগান মার্কেলের রাজকীয় বিয়েতে উপস্থিত ছিলেন। সেখান থেকে তিনি দুবাই হয়ে এমিরেটস এয়ারলাইনসের একটি উড়োজাহাজে সকাল সাড়ে ৮টায় ঢাকা হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতারণ করেন।

সেখান থেকে ইউএস বাংলার বিএস-১৪১ ফ্লাইটে করে বেলা সাড়ে ১২টায় ঢাকা থেকে কক্সবাজারে পৌঁছান এই অভিনেত্রী। কক্সবাজার রোহিঙ্গা ক্যাম্প সফরকালীন সময়ে সেখানকার পাঁচ তারকা হোটেল রয়েল টিউলিপে অবস্থান করেন। সফরের প্রথম দিন ( সোমবার ) শাপলাপুর অস্থায়ী রোহিঙ্গা ক্যাম্পে শিশুদের স্বাস্থ্যের খোঁজ-খবর নেন এবং শিশুদের পড়াশোনায় উৎসাহ দেন। কালো জিনসের প্যান্ট, সাদা টি-শার্ট আর মাথায় স্কার্ফ পরা এই বলিউড অভিনেত্রীর সঙ্গে ছিলেন ইউনিসেফ ও স্থানীয় প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

সফরের দ্বিতীয় দিন ( মঙ্গলবার ) সকালে তিনি উখিয়ার বালুখালী ও জামতলী রোহিঙ্গা ক্যাম্প এবং বিকালে টেকনাফ রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করেন। সফরের তৃতীয় দিন ( বুধবার ) উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করেন। আজ সকালে কক্সবাজার থেকে ঢাকা আসেন এই বলিউড তারকা। নিজ দেশের উদ্দেশ্য আজই ঢাকা ত্যাগ করার কথা রয়েছে ইউনিসেফের এ শুভেচ্ছা দূতের।

ঢাকায় এসেই ফেসবুক নিজের ভেরিফায়েড পেজে প্রিয়াঙ্কা চোপড়া লিখে ছিলেন, ‘রোহিঙ্গা উদ্বাস্তু ক্যাম্পে যাচ্ছি। আমার ইনস্টাগ্রামে সেখানকার সব অভিজ্ঞতা শেয়ার করব। আমাকে সেখানে অনুসরণ করতে থাকুন। এ বিষয়টি নিয়ে বিশ্বের ভাবা উচিত। ভাবতে হবে আমাদেরও।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত