প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

এবার কোহেনের বিরুদ্ধে ঘুষ নেয়ার অভিযোগ

আব্দুর রাজ্জাক: মার্র্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ইউক্রেনের সাথে আলোচনায় বসাতে গোপনে অর্থ লেনদেন হয়েছিল বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম রয়টার্র্স। ইউক্রেনের কর্তৃপক্ষ থেকে ট্রাম্পের ব্যক্তিগত আইনজীবী মাইকেল কোহেন অন্তত ৪লাখ মার্কিন ডলার ঘুষ নিয়েছিলেন বলে প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে। ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট পেত্রো পোরোশেংকোর সাথে ট্রাম্পকে আলোচনায় বসাতে ঐ অর্থ নেওয়া হয়েছিল বলে জানিয়েছে ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের একাধিক সূত্র। ইতোমধ্যেই এই কোশুলি ট্রাম্পের সাবেক প্রেমিকা স্টর্মি ড্যানিয়েলসকে মুখ বন্ধ রাখতে ১লাখ ৩০হাজার মার্কিন ডলার ঘুষ দেয়ার অভিযোগে ব্যাপক বিতর্কে জড়িয়েছেন।

বৃহস্পতিবার কোহেনের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে বলা হয়, তিনি ইউক্রেন ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের অফিসিয়াল কোন কর্মকর্তা না হওয়া সত্ত্বেও অর্থগুলো নিয়েছেন। ট্রাম্পের লবিস্ট তথা মধ্যস্ততাকারীরা ট্রাম্পের সাথে বৈঠকের সম্ভবনা খুব কমই দেখাতে পারত তাই তারা সরাসরি কোহেনের সাথে যোগাযোগ করেছে বলে জানান পোরোশেংকো প্রশাসনের একজন উর্ধ্বতন গোয়েন্দা কর্মকর্তা। কোহেন ব্যক্তিগত আইনজীবী হওয়ায় তার দ্বারা মধ্যস্ততার নিশ্চয়তা বেশি ছিল বলেও ঐ কর্মকর্তা নিশ্চিত করেছে। যদিও কোহেন তার বিরুদ্ধে সকল অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

উল্লেখ্য, গত জুনে ইউক্রেনের নেতা পোরোশেংকোর সাথে ট্রাম্প হোয়াইট হাউজে একটি দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে বসেছিলেন। প্রায় একবছর পর ঐ বৈঠক নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। প্রথমে এ কাজের জন্য ট্রাম্পের সাবেক একজন সহকারির সাহায্য চেয়ে ব্যর্থ হলে পরে কোহেনকে অর্থের বিনিময়ে রাজি করানো হয় বলে একজন গোয়েন্দা কর্মকর্তা জানিয়েছে। কোহেন তার বিরুদ্ধে আনিত ঘুষ নেয়ার অভিযোগ করলেও এর আগে তিনি ড্যানিয়েলসকে ঘুষ দিয়েছিলেন বলে নিজেই স্বীকার করেছিলেন। বিবিসি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত