প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ইউরোপীয় আইনপ্রণেতাদের কাছে ক্ষমা চাইলেন জাকারবার্গ

লিহান লিমা: ব্যবহারকারীদের পর্যাপ্ত তথ্য সুরক্ষার অভাব ও ভুয়া খবরের দৌরাত্ম রুখতে ব্যর্থতার জন্য ইউরোপিয় পার্লামেন্টে ক্ষমা চাইলেন ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ।

এর আগে ব্রিটিশ কনসালটেন্সি ফার্ম ক্যামব্রিজ অ্যানালেটিকার দ্বারা ৮ কোটি ৭০ লাখ ফেসবুক ব্যবহারকারীর তথ্য চুরি হয়। এই ইস্যুতে এপ্রিলে দশ ঘন্টা মার্কিন কংগ্রেসে শুনানি দিয়েছিলেন জাকারবার্গ। এরপর সোমবার ব্রাসেলস এ ইইউ পার্লামেন্টে হাজির হন তিনি। বুধবার তার ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর সঙ্গে দেখা করার কথা রয়েছে।

সোমবার রুদ্ধদ্বার বৈঠকের ৯০ মিনিটের শুনানিতে ইইউ পার্লামেন্টে জাকারবার্গ বলেন, ‘মানুষকে আরো সংযুক্ত করার জন্য ফেসবুক নতুন নতুন ফিচার নিয়ে হাজির হয়েছে। গত দুই বছর ধরে আমরা ক্ষতিকারক বিষয়গুলো এড়াতে যথাসাধ্য চেষ্টা করেছি। তবে ভুয়া খবর, বিদেশি হস্তক্ষেপ, ইলেকট্রনিক ও ডেভেলাপার কোম্পানির দ্বারা মানুষের তথ্যকে অবৈধভাবে ব্যবহারের মত বড় ইস্যুগুলোতে আমরা যথেষ্ট দায়িত্ব পালন করতে পারি নি। এটি একটি বড় ভুল। আমি এর জন্য ক্ষমা চাইছি।’

এই সময় জাকারবার্গ ইইউ’র নিজস্ব তথ্য সুরক্ষা নীতিকে স্বাগত জানান। তিনি আরো বলেন, ‘ফেসবুক পূর্ববর্তী ব্রাউজের তথ্য-উপাত্ত মুছে ফেলার ফিচার চালু করতে যাচ্ছে।’ তবে কিছু আইনপ্রণেতা জাকারবার্গের দেয়া উত্তর নিয়ে অসন্তুষ্ট ছিলেন। ইইউ পার্লামেন্টের লিবারেল নেতা গে ভারহোফস্টেড বলেন, ‘জাকারবার্গ আমাদের অনেক প্রশ্ন এড়িয়ে গিয়েছেন ও তার কিছু কথা অপ্রাঙ্গিক ছিল।’ ইউরোপিয় পিপলস পার্টির মধ্য-ডান পন্থী জার্মান নেতা ম্যানফ্রেড উইবার বলেন, ‘ফেসবুকের প্রধান পুরোপুরি স্পষ্ট ছিলেন না, তিনি আমাদের সব প্রশ্নের উত্তরও দেন নি।’ ইউরোপিয় পার্লামেন্টের প্রধান অ্যান্টোনিও তাজানি জাকারবার্গকে ব্রাসেলস এ আসার জন্য সাধুবাদ জানান। সেই সঙ্গে তিনি আরো বলেন, ‘তার ক্ষমা চাওয়াই যথেষ্ঠ নয় তাকে (ভুল শুধরাতে) অনেক কাজ করতে হবে।’ এএফপি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত