প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

স্বাধীনতাকামী এক তিব্বতীকে পাঁচ বছরের সাজা দিয়েছে চীন

ইফ্ফাত আরা: ‘তিব্বতী ভাষা শিক্ষা’ প্রচারণার দায়ে এক তিব্বতী স্বাধীনতাকামীকে ‘বিচ্ছিন্নতার উদ্দীপনা’ প্রচারের অপবাদে পাঁচ বছরের সাজা দিয়েছে চীন।

স্থানীয় বিদ্যালয় গুলোতে তিব্ববী ভাষার প্রচারণার দায়ে ২০১৬ সালে তোষি ওয়াংচুক নামে এক সক্রীয় কর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিলো। আইনজীবির তথ্যানুসারে, দুইবছরের অধিক কারাগারে কাটাচ্ছেলিনে তোষি। দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর ইউশু শহরের পশ্চিমা চীনের আদালত কর্তৃক তাকে পাঁচ বছরের সাজা প্রদান করা হয়েছে।

নিউ ইয়র্ক টাইমসের তথ্যচিত্র অনুযায়ী, ২০১৬ সালে স্থানীয় বিদ্যালয় তিব্বতী ভাষার প্রচারণার জন্য তোষিকে আটক করা হয়েছিলো। ‘ন্যায়ের জন্য একজন তিব্বতীর যাত্রা’ নামে একটি ভিডিও তৈরি করেন নিউ ইয়র্ক টাইমস। সেখানে তারা দেখান, তিব্বত এলাকার কুইংহাই প্রদেশ থেকে বেইজিং পর্যন্ত স্থানীয় কর্মকর্তাদের বিরোধিতা করে চীনের সংবিধানে বহির্ভূতদের ‘প্রত্যেকের নিজ ভাষায় লিখা ও বলার অধিকার থাকতে হবে’ বলে প্রচার চালিয়েছিলো তোষি।

পূর্ব এশিয়ার গবেষণা পরিচালক জশুয়া রোসেনজউইগ বলেন, ‘তোষি ওয়াংচুক একজন স্বাধীনতাকামী ও কারাবন্দী, যিনি গণমাধ্যম ব্যবহার করে চীনের আইনি মাধ্যমে তিব্বতীদের ভাষা, সং¯কৃতি ও পরিচয় তুলে ধরার জন্য সংগ্রাম করে গেছে’। তোষির আইনজীবি লিন কোয়েলি বলেন, তারা এই মামলাটির জন্য আবার আপিল করবে। আজকের রায়টি অবিচার হয়েছে। অধিকার আদায়ের জন্য শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিকে ‘বিচ্ছিন্নতার উদ্দীপনা’ আখ্যা দেয়াটা একেবারে হাস্যকর।

সমালোচকরা মনে করেন, ম্যান্ডারিনকে তিব্বতীদের ভাষা করে দিয়ে, তিব্বতীদের সং¯কৃতিকে উচ্ছন্ন করা হচ্ছে। তিব্বতীদের বিদ্যালয়েও ম্যান্ডারিন ভাষায় পড়ানো হয়, যেখানে তিব্বতী কেবল একটি বিষয় হিসেবে শেখানো হয়।

তোষি ছিলেন একজন দোকানদার, প্রাথমিক বিদ্যালয় থাকতে তার ভাইয়ের কাছ থেকে তিব্বতী ভাষা শেখে, যিনি শিখেছিলেন এক সন্যানীর কাছ থেকে। ২০১৫তে তোষি তার ভাতিজির জন্য তিব্বতী ভাষার বিদ্যালয় খুঁজে, বিভিন্ন প্রদেশ ঘুরেও তিনি এমন কোনো বিদ্যালয় খুঁজে পাননি।

তিনি নিউ ইয়ক টাইমস এর ভিডিওটিতে বলেছেন, স্থানীয় সরকার তিব্বতীয় সংস্কৃতিকে নিয়ন্ত্রণ করছে। উপর দিয়ে হয়তো দেখা যাচ্ছে তিনি তিব্বতীয় সংস্কৃতির ভালো করছে, মূলত তিনি তিব্বতী সংস্কৃতি, অপসারিত করার পায়তারা করছে। দ্যা গার্ডিয়ান

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত