প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ট্রাম্প-কিম বৈঠক রক্ষা করতে যুক্তরাষ্ট্রে মুন

লিহান লিমা: উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং উনের সঙ্গে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সম্ভাব্য বৈঠককে সামনে রেখে ওয়াশিংটন সফর করেছেন দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে ইন। সোমবার ট্রাম্পের সঙ্গে ফোনে কথা বলার পরদিনই হোয়াইট হাউসের উদ্দেশ্যে উড়াল দেন মুন।

এই সফরে মুন দুই ঘন্টা হোয়াইট হাউসে কাটাবেন। তবে তিনি এবং ট্রাম্প কোন বিবৃতি বা যৌথ সংবাদ সম্মেলন করবেন না। জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের মুখপাত্র রবার্ট পালাদিনো বলেন, ‘দুই নেতাই সহযোগিতা অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়েছেন।’

মুনের সফর চলাকালীন সময়েই মার্কিন ভাইস-প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স ফক্স নিউজের সঙ্গে এক সাক্ষাতকারে উত্তর কোরিয়াকে হুমকি দিয়ে বলেন, এই বৈঠক থেকে সরে যাওয়া হবে কিমের জন্য সবচেয়ে বড় ভুল। তিনি আরো বলেন, ‘ ট্রাম্প সম্মেলনের প্রস্তুতির কাজ শুরু করেছেন, এতে কোন সন্দেহ নেই। তবে ট্রাম্পের সঙ্গে টালবাহানার পরিণাম ভাল হবে না।’

মার্চে দক্ষিণ কোরিয়ার মধ্যস্থতায় ১২ জুন সিঙ্গাপুুরে ট্রাম্প-কিম বৈঠকের সময় নির্ধারণ করা হয়েছিল। কিন্তু ট্রাম্পের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন কোরিয়াকে ‘লিবিয়া মডেল’ অনুসরণের পরমর্শ দিলেই ক্ষেপে যায় পিয়ংইয়ং। এর আগে ২০০৩ সালে লিবিয়ার সাবেক নেতা মোহাম্মদ গাদ্দাফি অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার শর্তে পারমাণবিক কর্মসূচি বাতিল করেন। কিন্তু ৮ বছর পর পশ্চিমা সমর্থিত বিদ্রোহীদের হাতেই তিনি নিহত হন। এছাড়া ওয়াশিংটন-সিউল চলমান সামরিক মহড়া নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে দক্ষিণের সঙ্গে আলোচনা বাতিল করে উত্তর কোরিয়া।

জর্জ ডব্লিউ বুশ প্রশাসনে জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিলের এশিয়া বিষয়ক নির্বাহী হিসেবে কাজ করা ভিক্টর চা’ বলেন, ‘মূলত মুন ট্রাম্প-কিম সম্মেলনকে রক্ষা করতেই এখানে ছুটে এসেছেন।’ এমএসএন জানায়, এই বৈঠক নিয়ে ট্রাম্প নিজেও অনেক প্রত্যাশা করেছিলেন। গত ২৭ বছরের ব্যর্থতার পর এই ঐতিহাসিক বৈঠককে তিনি পূর্ববর্তী প্রশাসনের ব্যর্থতা ও নিজের সক্ষমতা হিসেবে দেখছিলেন। এমএসএন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত