প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কেন বাথরুমের দরজা বন্ধ রাখবেন

অনলাইন ডেস্ক : বাথরুমে গিয়ে দরজা খুলে রাখার ঘটনা প্রতিনিয়ত ঘটে। মানুষের মন সবসময় একরকম থাকে না। আপনার অবচেতন মনে অনেক সময় আপনি কল্পনার জগতে হাবুডুবু খান। তাই বাথরুমে গিয়ে দরজা বন্ধের বিষয়টি ভুলেও যান। তবে স্পর্শকাতর এ বিষয়টি ঘটে থাকলেও লজ্জায় কেউ মুখে স্বীকার করতে চান না।

তবে বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে দরজাটি বন্ধ রাখা স্বাস্থ্যের কারণেই সঙ্গত, এ কথা আমরা জানি। কেবল নিজের বাড়ির বাথরুম নয়, অফিস- এমনকি পাবলিক টয়লেটের দরজা বন্ধ না করার ঘটনা ঘটে।

তবে যা কিছুই ঘটুক না কেন, বাথরুমের দরজা বন্ধের বিষয়টি অবশ্যই মনে রাখতে হবে। ভুলেও বাথরুমের দরজা খুলে রাখা যাবে না।

 

পারিবারিক অশান্তি

পারিবারিক অশান্তি বা যে কোনো কারণে যদি আপনার মন খারাপ থাকে বা আপনি যদি কোনো বিষয় নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েন, তবে এমনটি ঘটতে পারে। তবে ভুলে গেলে চলবে না বাথরুমের দরজা ঠিকঠাক বন্ধ থাকছে কিনা। অফিসের ক্ষেত্রেও একই বিষয় লক্ষ রাখবেন।

শারীরিক অসুস্থ

আপনি যদি অসুস্থ এবং আপনার মন-মেজাজ যদি বেশি খারাপ থাকে, তবে এমনটি হতে পারে। শরীর যদি বেশি অসুস্থ হয়, তবে অন্যের সাহায়্যে নিতে পারেন।

পরীক্ষা চলাকালীন

পরীক্ষা চলাকালীন অনেক সময় চিন্তার কারণে অনেকে বাথরুমের দরজা বন্ধ করতে ভুলে যান। তবে অবশ্যই দরজা যেন বন্ধ থাকে এ বিষয় সতর্ক থাকুন।

দরজার লক নষ্ট

হয়তো আপনার বাথরুমের দরজার লকটি অনেক দিন ধরেই নষ্ট। আরিসার কারণে লাগাতেও মন চাইছে না। তবে ভুলেও এই আরিসা করবেন না।

কেন বাথরুমের দরজা বন্ধ রাখবেন।

এনার্জি

বাথরুম নেগেটিভ এনার্জিকে দূর করে। সেই কারণে এই ঘর থেকে নেগেটিভ এনার্জি বেরিয়ে বাড়ির অন্যান্য ঘরে ছড়িয়ে পড়তে পারে। সেই কারণে বাথরুমের দরজা বন্ধ থাকা জরুরি। আর তার ভেন্টিলেটর বা এগজস্ট ফ্যান খোলা ও চালু থাকা প্রয়োজন।

দাম্পত্য কলহ

বেডরুমের লাগোয়া বাথরুমের দরজা যদি বেশিরভাগ সময়ে খোলা থাকে, তা হলে দাম্পত্য কলহ হতে পারে। কারণ আপনার সঙ্গী বিষয়টি পছন্দ নাও করতে পারেন।

জীবানু সংক্রামণ

বাড়ি ও অফিসে বাথরুমের দরজা যদি বেশিরভাগ সময়ে খোলা থাকে, তবে হতে পারে জীবণু সংক্রামণ রোগ। তাই সুস্থ থাকতে হলে অবশ্যই বাধরুমের দরজা বন্ধ রাখুন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ