প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসার দাবি সাংবাদিক সংগঠনসহ ১০১ চিকিৎসকের

সুশান্ত সাহা ও শিমুল মাহমুদ : কারাবন্দি সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসা দেয়ার দাবি জানিয়েছেন দেশের ১০১ জন বিশিষ্ট চিকিৎসক সহ সাংবাদিক নেতারা।

সোমবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন-বিএফইউজে ও এর অধীনস্থ ১২টি সাংবাদিক ইউনিয়নের বর্তমান ও সাবেক নেতারা এ দাবি জানান।

বিবৃতিতে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ বেগম খালেদা জিয়াকে গণতন্ত্র ও গণমাধ্যমের বন্ধু ও সুহৃদ হিসেবে বর্ণনা করে বলেন, গুরুতর অসুস্থ খালেদা জিয়ার চিকিৎসা না দিয়ে সরকার যে নিষ্ঠুর ও অমানবিক আচরণ করছে তা মৌলিক ও মানবিক অধিকারের পরিপন্থী। তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বয়োবৃদ্ধ, অসুস্থ নারীর সঙ্গে সরকারের প্রতিহিংসামূলক আচরণ দেশের প্রতিটি বিবেকবান মানুষকে স্তম্ভিত ও নিদারুণভাবে আহত করেছে।

বিবৃতিতে সাংবাদিক নেতারা বলেন, খালেদা জিয়া এ দেশে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার এবং গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নিশ্চিত করতে যে ঐতিহাসিক ভূমিকা পালন করেছেন তা দেশের সাংবাদিক সমাজ কখনও ভুলবে না। তাঁর শাসনামলে দেশের গণমাধ্যম সর্বাধিক স্বাধীনতা ভোগ করেছে এবং ব্যাপক বিকাশ লাভ করেছে। আজ গণতন্ত্র ও গণমাধ্যমের ঘোর দুর্দিনে একটি বানোয়াট ও ভিত্তিহীন মামলায় প্রহসনের বিচারের মাধ্যমে তাঁকে সাজা দিয়ে কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা উদ্বেগজনক। উন্নত চিকিৎসা না পেলে বড় ধরনের বিপদ ঘটতে পারে বলে চিকিৎসকরা আশঙ্কা প্রকাশ করার পরও সরকারের নির্বিকার ভূমিকার তীব্র নিন্দা জানান সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ।

অপর এক বিবৃতিতে চিকিৎসকরা বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া অসুস্থ থাকার পরও সুচিকিৎসা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। একজন ৭৩ বছর বয়সী মহিলা বাংলাদেশের সর্বাধিক জনপ্রিয় দলের সর্বোচ্চ নেত্রী এবং সাবেক প্রধানমন্ত্রী হওয়া সত্ত্বেও সুচিকিৎসা না পাওয়া মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন। বিবৃতিতে তারা বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার দীর্ঘদিন ধরে আর্থাইটিস জনিত রোগের কারণে দুই হাঁটুই প্রতিস্থাপন করা হয়। তিনি বহুদিন ধরে উচ্চ রক্তচাপ ও শ্বাসকষ্টজনিত রোগে ভুগছেন।

এছাড়াও সমস্যাজনিত কারণে তার চোখের অপারেশন করানো হয়। এসব জটিল রোগের জন্য তিনি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন ও নিবিড় পর্যবেক্ষণে ছিলেন কিন্তু মিথ্যা, সাজানো ও প্রহসনের জিয়া এতিমখানা মামলায় রাজনীতি থেকে দূরে রাখার জন্য সাজা দিয়ে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে পুরনো জরাজীর্ণ কারাগারে একাকী রাখা হয়। এতে সুচিকিৎসা না হওয়ায় ধীরে ধীরে তার স্বাস্থ্যের অবনতি হচ্ছে।

চিকিৎসকরা বলেন, সরকার তার চিকিৎসার বিষয়ে গা-ছাড়াভাবে মেডিকেল বোর্ড গঠন করে চিকিৎসা করছে। বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগার থেকে বিএসএমএমইউ (সাবেক পিজি)-তে স্বাস্থ্য পরীক্ষার নামে এনে শুধু এক্স-রে করানো হয়। কোনো বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক বোর্ড বা উনার ব্যক্তিগত চিকিৎসক দ্বারাও স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়নি এবং উনার কোনোরূপ চিকিৎসা প্রদান না করে শুধু এক্স-রে করানো প্রহসনের নামান্তর।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত