প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

গণমাধ্যমসহ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের লভ্যাংশের অংশ কর্মচারিদের দেয়ার আহবান শ্রম প্রতিমন্ত্রীর

আনিসুর রহমান তপন : গণমাধ্যমসহ লাভজনক সব ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে মুনাফার ৫ শতাংশ কর্মচারিদের মধ্যে সমহারে বন্টন করার জন্য আহবান জানিয়েছেন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হক চুন্নু। তিনি বলেন, বিদ্যমান শ্রম আইনে লাভজনক প্রতিষ্ঠানসমূহের লভ্যাংশের শতকরা ৫ ভাগের আট অংশ শ্রমিক-কর্মচারির মধ্যে বিতরণ ও এক অংশ তাদের কল্যাণে নিজ প্রতিষ্ঠানের প্রভিডেন্ট ফাÐে জমা রাখার পাশাপাশি অপর এক অংশ শ্রমিক কল্যাণ তহবিলে জমা দেয়ার বিধান রয়েছে।
সোমবার সচিবালয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ‘মে দিবস’ উপলক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে গণমাধ্যমসহ লাভজনক যেসব প্রতিষ্ঠান কর্মচারীদের মধ্যে লভ্যাংশ বিতরণ করেন না এবং সরকারি তহবিলে অর্থ জমা করেন না সেসব প্রতিষ্ঠানের কর্তৃপক্ষ বরাবর শ্রম আইন বাস্তবায়নে তাগিদ পত্র দেয়া হবে। বর্তমানে মাত্র ১’শ এর কিছু বেশি প্রতিষ্ঠান শ্রমিক কল্যাণ ফাউন্ডেশনে অর্থ জমা দিচ্ছে তাও জানান এসময়।

সংবাদ সম্মেলণে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব আফরোজা খান, শ্রম অধিদপ্তরের মহাপরিদর্শকসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এই মুহূর্তে শ্রমিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন তহবিলে ২৮৩ কোটি টাকা জমা আছে। এরমধ্যে এই তহবিল থেকে দুই হাজার ৬৫৪ শ্রমিকের পরিবারকে ২২ কোটি টাকা সহায়তা দেয়া হয়েছে। তাছাড়া গার্মেন্ট শ্রমিকদের সহায়তা দেয়ার লক্ষ্যে অন্য একটি ‘কেন্দ্রীয় তহবিলে’ জমা আছে ৪৪ কোটি ৬৩ লাখ টাকা। এই তহবিল থেকেও এরই মধ্যে এক হাজার ৩২৬ জন শ্রমিক পরিবারকে পাঁচ কোটি ৮৬ লাখ টাকা সহায়তা দেয়া হয়েছে।

দেশে ৪৩টি শ্রমিক খাত রয়েছে উল্লেখ করে চুন্নু বলেন, এসব খাতের শ্রমিকদের মজুরী বৃদ্ধির লক্ষ্যে এরমধ্যে ৩৮ খাতে কমিশন গঠন করা হয়েছে। পোশাক খাতের জন্য গত ২৯ জানুয়ারি একটি কমিশন গঠন করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, তারা কাজ করছে। আগামী তিন মাসের মধ্যে এই কমিশন সরকারকে প্রতিবেদন দেয়ার পর আমরা সিদ্ধান্ত জানাবো।

সম্প্রতি বজ্রপাতে সারাদেশে যেসব কৃষি শ্রমিক মৃত্যুবরণ করেছেন তাদের পরিবারকেও আর্থিক সহায়তা করা হবে জানিয়ে শ্রম প্রতিমন্ত্রী বলেন, সারাদেশে মন্ত্রণালয়ের ২৩ জেলায় অফিস আছে। তাদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে, বজ্রপাতে নিহত কৃষি শ্রমিকের তথ্য সংগ্রহ করে পাঠাতে, যাতে আমরা ব্যবস্থা নিতে পারি।

তিনি বলেন, যেসব শ্রমিক কৃষি ক্ষেতে কাজ করতে গিয়ে বজ্রপাতে মারা যাবে তারা সবাই শ্রমিক কল্যাণ ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে সহায়তা পাবেন। চুন্নু বলেন, আমরা সাধারণত কোনো শ্রমিক কর্মক্ষেত্রে দুর্ঘটনায় মৃত্যুবরণ করলে দুই লাখ টাকা সহায়তা দিয়ে থাকি। তাই দূর্ঘটনায় একজন রিকশা চালকও কর্মক্ষেত্রে মারা গেলে তিনিও দুই লাখ টাকা পাবেন।

‘শ্রমিক মালিক ভাই ভাই, সোনার বাংলা গড়তে চাই’ এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে মঙ্গলবার ‘মে দিবস’ সরকার উদযাপন করবে জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, দিনটি পালনের লক্ষ্যে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে সরকার।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত