প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মাংস এড়িয়ে মাছের দোকানে লম্বা লাইন আম আদমির

রাশিদ রিয়াজ : ভারতে রীতিমত তাজ্জব বনে গেছে বাঙালি। ভাগাড়ের মরা গরু ও মুরগির মাংস দেশটি থেকে বাংলাদেশের বাজারে চালান দেওয়া হত। এখন মাংসের গন্ধ ছাড়া কেমন যেন নিরামিষ পাত, এ এক অচেনা বাঙালির রোববার। অন্যদিন না হয় মাছে-ভাতেই খুশি। কিন্তু বেমানান হলেও মাংস ছাড়া রোববারে খাওয়া দাওয়অ একপ্রকার আতঙ্কে সারে পশ্চিম বাংলার বাঙালিরা। ভাগাড় আর খামারকা-ের আতঙ্কে মানিকতলা বাজারে মাংসের দোকান ফাঁকাই ছিল। শুধু মানকতলা বাজারই নয়, উত্তর থেকে দক্ষিণ, পূর্ব থেকে পশ্চিম চিত্র একই, আপাতত মাংস বাদ। মাছ আর ডিমেই কাফি।

বসন্ত বিদায়েও বাঙালির মেনুতে মাংস নেই। বাজারের থলের এককোণায়ও জায়গা পেল না মাংস ! ফাঁকা ফাঁকা ঠেকলেও মুরগি-পাঁঠা থেকে আপাতত মন উঠেছে বাঙালির। এই হাল তৈরি হয়েছে

ভাগাড়ের মরা পশু আর খামারের মরা মুরগির মাংসে আতঙ্কিত মানুষের। মানিকতলা বাজারে মাংসের দোকান সকাল থেকে ফাঁকা। কাটা মাংস না কিনে, গোটা মুরগি কাটিয়ে নিয়ে গেলেন ক্রেতারা। দাম বেড়েছে গোটা মুরগিরও। এই সময়

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত