প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কুয়েত থেকে সাধারণ ক্ষমায় দেশে ফিরেছেন কাগজপত্রহীন ২ হাজার প্রবাসী

সাজিয়া আক্তার : কুয়েতে বসবাসরত অবৈধ বাংলাদেশিদের জন্য দেশটির সরকারের বেধে দেয়া সময়ের মধ্যে প্রায় ২ হাজার বাংলাদেশি এরই মধ্যে দেশে ফিরে এসেছে। তবে এখনো যেসব অবৈধ অভিবাসীরা দেশে ফিরতে পারেননি তাদের ফিঙ্গারপ্রিন্ট ছাড়াই নিজ দেশে ফিরার সুযোগ এখনো রয়েছে বলে জানান দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত। অবৈধ বাংলাদেশিরাও দেশে ফিরতে প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন।

কুয়েতে অবৈধভাবে বসবাস কারীদের দেশটির সরকার সাধারণ ক্ষমা ঘোষনার পর পাসপোর্ট জটিলতা সহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে দুতাবাসে ভির করছেন বাংলাদেশিরা। এদের বেশির ভাগেরই কুয়েতে বসবাসের মেয়াদ শেষ হয়েছে অনেক আগেই। ক্ষমা ঘোষনার পর দেশে ফিরে যাওয়ার সুযোগকে কাজে লাগাছে অনেক অবৈধ অভিবাসী।

কুয়েতে বসবাসরত অবৈধ বাংলাদেশিরা বলেন, বাংলাদেশ দুতাবাস কুয়েত সম্পূর্নভাবে সহযোগিতা করবে, আমাদের দেশের যারা অবৈধভাবে আছেন। অনেকদিন ধরে আসায় ছিলাম দেশে ফিরে যাবো, এখন কুয়েত সরকার সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করাতে আমারা দেশে ফিরে যেতে পাবো।

এই প্রক্রিয়ায় দেশটিতে বিভিন্ন অপরাধে অভিযুক্তদের দেশে ফিরার সুযোগ থাকছে বলে জানান বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত।
কুয়েতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এস. এম আবুল কালাম বলেন, এখানে বিভিন্ন মামলায় যারা জড়িত আছে অথবা বিভিন্ন আইনে যারা সাজাভুক্ত আসামি আছে এবং যারা সাজা পেয়েছে তাদেরকেও সাজা থেকে মুক্ত করে দেশে যাওয়ার একটা সুযোগ দেওয়া হচ্ছে। জরিমানা দিয়েও যদি ভিসা না লাগাতে না পারে তাহলে তাদেরকে ফিঙ্গারপ্রিন্ট ছাড়াই দেশে চলেযেতে পারবে।
এদিকে ক্ষমা ঘোষণার পর যেসব বাংলাদেশিরা নিজ দেশে ফিরে যাবেন তারা বৈধ্যভাবে ভিসা নিয়ে আবারো কুয়েতে আসতে পারবেন।

কুয়েত-বাংলাদেশ দুতাবাস প্রধান সচিব জাহরুল ইসলাম খান বলেন, যারা ইতিমধ্যে বিভিন্ন কারণে অবৈধ হয়ে পরেছেন, তাদেরকে দেশে চলে যাওয়ার একটা সুযোগ দিয়েছিল সারকার। তারা কোনো জড়িমানা ছাড়া, শাস্তিতে ছাড়াই দেশে যেতে পারবে। যারা দেশে ফিরে যাবেন তারা আবার বৈধ্য ভাবে ভিসা নিয়ে আবার কুয়েতে আসতে পারবে।
কুয়েতে বিভিন্ন স্থানে প্রায় ৩ লাখের ও বেশি বাংলাদেশি বসবাস করেন।

সময় টেলিভিশন থেকে মনিটরিং

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত