প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা সোমবার ক্লাস ও পরীক্ষা বর্জন করবে

কায়েস চৌধুরী : ৭৭তম সিন্ডিকেট সভায় গবেষণায় জালিয়াতের অভিযোগে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক নাসির উদ্দিন আহমেদকে চাকরিচ্যুত করার প্রতিবাদে আগামি কাল সোমবার ( ২৯ এপ্রিল) ক্লাস এবং পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা দিয়েছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

রোববার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এক মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা এ ঘোষণা দেন। এর পাশপাশি চাকরিচ্যুত শিক্ষককে পুনরায় স্বপদে বহালের দাবি জানিয়েছে।

মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা বলেন, যে অভিযোগের ভিত্তিতে অধ্যাপক নাসির উদ্দিন আহমেদকে চাকরি থেকে অপসারণ করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ ষড়যন্ত্রমূলক এবং অবৈধ। তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের প্রথম তদন্ত কমিটিতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো শিক্ষক ছিলনা। এই তদন্ত কমিটির প্রত্যেকেই ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি বিশেষ গ্রুপের সদস্য। তার বিরুদ্ধে ১ম কারণ দর্শানো নোটিসের জবাব প্রসঙ্গে তার পক্ষে জোরালো যুক্তিসহ তার ওপর আনিত অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণিত করলে ১ম তদন্ত কমিটি তদন্তের ফলাফল সংক্রান্ত কোনও কিছুই নাসির উদ্দিনের কাছে পাঠায়নি এবং তার কোনো বক্তব্য নেয় নি।

শিক্ষার্থীরা আরও বলেন, ২য় তদন্ত কমিটির কারণ দর্শানো নোটিশের জবাবে নাসিরুদ্দিন নিজের পক্ষে যুক্তিখণ্ডন করেন এবং আনিত অভিযোগের যথার্থ জবাব দেন। এর পাশাপাশি তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের প্রয়োজনীয় নথি পত্র সরবরাহ করে পরবর্তী সাত দিনের সময় চান। তদন্ত কমিটি তাকে শুনানিতে ডাকলেও তার কোনও বক্তব্য শুনতে চায় নি এবং তার কোনও যুক্তি আমলে নেয় নি। সম্প্রতি প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে ২য় কারণ দর্শানোর বক্তব্য আংশিক উদ্ধৃতি করে তাকে উগ্রভাবে প্রতিয়মান করা হয়েছে, যা সম্পূর্ণ ষড়যন্ত্রমুলক এবং মানহানির শামিল। আমরা সাধারণ শিক্ষার্থীরা এই ষড়যন্ত্রের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। এরই প্রেক্ষিতে আজকের এই মানববন্ধন। আমাদের দাবি নাসির উদ্দিন স্যারকে সসম্মানে দ্রুত বিশ্ববিদ্যালয়ে ফিরিয়ে আনতে হবে। তাকে তার পদ ফিরিয়ে দিতে হবে। আমরা তাকে ফিরিয়ে আনার জন্য মাননীয় উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করবো। এর পাশাপাশি আগামিকাল ক্লাস ও পরীক্ষা বর্জনের আহ্বান জানাচ্ছি। আমাদের দাবি না মানা হলে ভবিশ্যতে আরও কঠোর কর্মসূচী দিতে বাধ্য হবো।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত