প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জিজানে হুথিদের ক্ষেপণাস্ত্রে সৌদি নাগরিক নিহত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : সৌদি আরবের জিজান প্রদেশে হুথি বিদ্রোহীদের নিক্ষেপ করা ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রে এক সৌদি নাগরিক নিহত হয়েছেন। শনিবার সৌদি কর্তৃপক্ষ জানায়, মিসাইলে ভবনের ধ্বংসাবশেষের আঘাতে ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদন থেকে এই তথ্য জানা যায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গত সপ্তাহেই ইয়েমেন সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের আঘাতে নিহত হয়েছিলেন এক হুথি কর্মকর্তা। তার জবাবেই এই হামলা চালানো হয় বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ইরান সমর্থিত হুথি বিদ্রোহীরা সৌদি নেতৃত্বাধীন সামরিক জোটের সঙ্গে ২০১৫ সাল থেকে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে। আন্তর্জাতিক সমর্থনপুষ্ট সরকারকে হঠিয়ে হুথি বিদ্রোহীরা রাজধানী দখল করে নিলে এই সংঘাত শুরু হয়। ইয়েমেনযুদ্ধকে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় আঞ্চলিক শক্তি ইরান ও সৌদি আরবের মধ্যকার ছায়াযুদ্ধ হিসেবে দেখে থাকে।

হুথি বিদ্রোহীরা দাবি করছে, সৌদি আরবের অর্থনৈতিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ জিজান প্রদেশ লক্ষ্য করে আটটি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে তারা। রিয়াদের দাবি, এই হামলা প্রতিহত করেছে তারা।

জিজানের সিভিল ডিফেন্স মুখপাত্র কর্নেল ইয়াহিয়া আব্দুল্লাহ আল কাহতানি বলেন, ভবন ধসের অংশ পড়ে মারা যান ওই ব্যক্তি।
এর আগে সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন সামরিক জোটের বিমান হামলায় ইয়েমেনের রাজধানী সানায় দুই কমান্ডারসহ ৫০ জনেরও বেশি হুথি বিদ্রোহী নিহত হওয়ার খবর দিয়েছে একটি সৌদি টেলিভিশন। তবে দেশটির অপর একটি টেলিভিশন বলছে বিদ্রোহীদের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ভবনে চালানো হামলায় অন্তত ৩৮জন নিহত হয়েছে।

২০১৫ সালে থেকে এ পর্যন্ত চলা সংঘাতে অন্তত দশ হাজার মানুষের প্রাণহানি ঘটেছে, বাস্তুচ্যুত হয়েছে লাখ লাখ মানুষ। এই সংঘাতের কারণে তৈরি হয়েছে জাতিসংঘ বর্ণিত বিশ্বের সবচেয়ে বড় মানবিক বিপর্যয়। ইয়েমেন এখন দুর্ভিক্ষের দ্বারপ্রান্তে রয়েছে।
গত নভেম্বরে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট ইয়েমেনের বন্দরগুলোতে অবরোধ আরোপ করলে খাদ্য সংকট আরও প্রবল হয়। পরে আংশিকভাবে অবরোধ তুলে নেওয়া হলে দেশটির খাদ্য সংকট এখনও কাটেনি। সূত্র : বাংলা ট্রিবিউন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত