প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

দ্রুতগতিতে চলছে মেট্রোরেল প্রকল্পের কাজ

রুহুল আমিন : চলতি মাসের প্রথম দিকে উত্তরা দিয়াবাড়িতে দু’টি পিলারের ওপর একটি স্প্যান স্থাপন করা হয়েছে। আগারগাঁওয়ে আরেকটি স্প্যান বসাতে দু’টি পিলার নির্মাণের কাজ প্রায় শেষের দিকে।

গত বছরের ১ আগস্ট উত্তরার দিয়াবাড়ি থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত ১২ কিলোমিটার কাজের উদ্বোধন করা হয়। সেই উদ্বোধন থেকে দ্রুতগতিতে চলছে এ অংশের কাজ। ৩৭৭টি পিলারের ওপর এ রকম ৩৭৬টি স্প্যান বসে উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত বিস্তৃত হবে মেট্রোরেল। আগারগাঁও থেকে মতিঝিল পর্যন্ত অংশের কাজ ২০২০ সালে মধ্যে শেষ করার কথা রয়েছে ।

সরেজমিন মেট্রোরেল প্রকল্প এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, বর্তমানে আগারগাঁও থেকে উত্তরার দিয়াবাড়ি পর্যন্ত মেট্রোরেল নির্মাণের কাজ চলছে। আগারগাঁও পরিকল্পনা কমিশনের প্রান্তে দু’টি পিলার নির্মাণের কাজ গত দেড় মাস ধরে চলে এখন প্রায় শেষের দিকে। এ পিলার দু’টি নির্মিত হলে মেট্রোরেলে উঠবে দ্বিতীয় স্প্যান।

এদিকে মেট্রোরেল নির্মাণে আগারগাঁও থেকে কাজীপাড়া, মিরপুর-১০, পল্লবী হয়ে ক্যান্টমেন্টের ভেতর দিয়ে কাজ চলছে। এ জন্য সড়কের দু’দিক থেকে কিছু অংশ নিয়ে মাঝখানে বেড়া দিয়ে ঘিরে রাখা হয়েছে। এর মধ্যে মেট্রোরেলের কাজে ব্যবহৃত ক্রেন, পাইলিং যন্ত্রপাতিসহ অন্যান্য যন্ত্রপাতি রাখা হয়েছে। এ ছাড়া অবকাঠামো নির্মাণে ব্যবহৃত সিমেন্ট, ইট, বালু ও সুড়কিও রয়েছে সেখানে। শ্রমিকেরা নির্দিষ্ট পোশাক পরে কাজ করছেন।

প্রকল্প সূত্র জানায়, আটটি প্যাকেজের মেট্রোরেল (এমআরটি লাইন-৬) প্রকল্পের উত্তরা অংশে যে কাজ হচ্ছে এটি ৩ নম্বর প্যাকেজ। এর অধীনে উত্তরা থেকে পল্লবী পর্যন্ত প্রায় ৬ কিলোমিটারের কাজ চলছে। উত্তরা থেকে পল্লবী পর্যন্ত মেট্রোরেলের চারটি স্টেশন থাকবে। এগুলো হলোÑ উত্তরা নর্থ, উত্তরা সেন্টার, উত্তরা সাউথ ও পল্লবী। এরপর পল্লবী থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত আরো ৬ কিলোমিটারে পাঁচটি স্টেশন থাকবে।

প্রকল্প সূত্রে জানা যায়, উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত ২০.১ কিলোমিটার মেট্রোরেলে মোট ১৬টি স্টেশন থাকবে। সড়কের ওপর এসব স্টেশন নির্মাণ করা হবে। বিদ্যুৎচালিত এ ট্রেনের গতি হবে ঘণ্টায় গড়ে ৩২ কিলোমিটার। উত্তরা থেকে মতিঝিল আসতে সময় লাগবে মাত্র ৩৭ মিনিট। ছয়টি করে বগির ১৪টি ট্রেনে প্রতি ঘণ্টায় উভয় দিক থেকে ৬০ হাজার যাত্রী চলাচল করতে পারবে।

প্রতিটিতে এক হাজার ৬৯৬ জন যাত্রী চলতে পারবে। এরমধ্যে আসনে বসতে পারবে ৯৪২ জন এবং দাঁড়িয়ে থাকবে ৭৫৪ জন। প্রতি ৪ মিনিট পর ট্রেন ছেড়ে যাবে। কর্মকর্তারা জানান, প্রকল্পের প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছে ২১ হাজার ৯৮৫ কোটি টাকা। এর মধ্যে জাপান আন্তর্জাতিক সহযোগিতা সংস্থা (জাইকা) দেবে ১৬ হাজার ৫৯৫ কোটি টাকা। আর সরকার দেবে পাঁচ হাজার ৩৯০ কোটি টাকা।

এ ব্যাপারে কথা বলতে আগারগাঁওয়ের মেট্রোরেল বাস্তবায়নকারী ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড (ডিএমটিসিএল) প্রকল্প অফিসে গিয়ে পরিচালক না থাকায় সাক্ষাৎ পাওয়া যায়নি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ