প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ভোলায় অগ্নিকাণ্ডে অর্ধশতাধিক দোকান পুড়ে ৪’শ কোটি টাকা ক্ষতি

কামরুল ইসলাম, ভোলা: ভোলায় শুক্রবার (২৮ এপ্রিল) গভীর রাত থেকে সকাল পর্যন্ত শহরের প্রধান ব্যবসায়ীক কেন্দ্র মনিহারি পট্রি, চকবাজার, খালপাড় সড়কে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এতে অর্ধশতাধিক ছোট বড় দোকান ও গুদাম ভস্মীভূত হয়েছে।

ব্যবসায়ীরা প্রাথমিক ভাবে ধারণা করছেন, এতে অন্তত ৪ শত কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। আগুন নিভাতে গিয়ে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। এদিকে স্মরণকালের ভয়াবহ এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় প্রকৃত কারণ অনুসন্ধানে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এদিকে আগুন দোকানপাট পুড়ে অনেক ব্যবসায়ী পথে বসে গিয়ে দিশে হারা হয়ে পড়ে। তারা দ্রুত সরকারি সহায়তার জন্য দাবি জানান।

স্থানীয় ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শুক্রবার রাত পৌনে ১ টার দিকে মনোহারি পট্রির একটি দোকান থেকে এ আগুনের সুত্রপাত হয়। মনোহরি পট্রির হার্ডওয়ারের দোকানে থাকা রং,স্প্রিটসহ দাহ্য পদার্থে আগুন লেগে মুহুর্তেও মধ্যে আগুনের লেলিহান শিখা চার দিকে ছড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে আগুন খাল পাড় এলাকায় সুতা,পলিথিন ও ভোজ্য তৈলে লাগলে আগুনের তীব্রতা ভয়াবহ আকার ধারণ করে। এর পর একে একে চকবাজার এলাকার একাংশের ষ্টেশনারী, ফল, মুদি, চালে আড়তসহ রকমরি দোকানে আগুন ছড়িয়ে পড়ে।

এদিকে আগুন লাগার খবর পেয়ে প্রথমে ভোলা ফায়ার সার্ভিসের একটি টিম আগুন নিয়ন্ত্রণের কাজ শুরু করে। এর পর ফায়ার সার্ভিসের ৬টি ইউনিট প্রায় ৫ ঘন্টা চেষ্টা চালানোর পর ভোর সাড়ে ৬ টার দিকে নিয়ন্ত্রণে আসে। ভোলা মনোহরি পট্রি ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ব্যাবসায়ী আবু ইসমাইল পাপ্পু জানান তাদের আগুনে পুড়ে যাওয়া ২৯টি দোকানের প্রায় ৪ শত কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

ব্যবসায়ী রাজিব হাসান লিপু জানান, তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আবু তাহের এন্ড সন্সসহ ২টি দোকানের মালামালসহ প্রায় সোয়া কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তার মতো ব্যবসায়ী কামরুল,বুলবুলসহ অনেকেরই দোকান ভস্মীভূত হয়ে নিস্ব হয়ে গেছে। এদিকে রাতেই পুলিশের পাশাপশি স্থানীয় লোকজন আগুন নেভানোর কাজে এগিয়ে আসে। আগুন নিভাতে গিয়ে অন্তত ১০জন আহত হয়েছে। এছাড়াও ভোলার খালে পানি কম থাকায় ফায়ার সার্ভিস টিমের সমস্যায় পড়তে হয় বলে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা জানান।

এদিকে বরিশাল ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারি পরিচালক মো. ফারুক হোসেন জানান,তারা এখনো আগুনের সূত্রপাত নির্ণয় করতে পারেনি। তারা তদন্ত করে তা নিরুপণ করবে। এদিকে আগুন লাগার খবর পেয়ে রাতেই ভোলা জেলা প্রশাসক মো. মাসুদ আলম ছিদ্দিক, পুলিশ সুপার মো. মোকতার হোসেন ঘটনা স্থল পরির্দশন করেন।

অপর দিকে ভোলা জেলা প্রশাসক মো. মাসুদ আল ছিদ্দিক জানান, ক্ষতিগ্রস্থদের সহায়তার জন্য তালিকা করে ত্রাণ মন্ত্রণালয়ে বরাদ্ধের জন্য চাহিদা পাঠানো হয়েছে। এছাড়া আগুনের ঘটনার তদন্তে ভোলা জেলা অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আবদুল হালিম কে আহ্বায়ক করে ৫ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ওই কমিটি ৩ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিলে কারণ জানা যাবে।

ব্যবসায়ীরা ডাক চিৎকার এবং মাইকিং করে অন্যদের সতর্ক করার চেষ্টা করছেন। আবার আগুন লাগার আশঙ্কায় গুড় পট্রি এলাকায় অনেক দোকানের মালামাল অন্যত্র সড়িয়ে ফেলে। এতে করে পানিতে ভিজে অনেকের মালামাল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আগুনের কারণে শহরের চক বাজার,মহাজনপট্রি এলাকায় বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ রাখা হয়েছে।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত