প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চালের দাম কমলেও বেড়েছে পেঁয়াজের দাম

জান্নাতুর ফেরদৌসী: নতুন মৌসুমের চাল বাজারে আসায় সপ্তাহের ব্যবধানে কেজি প্রতি ২ থেকে ৩ টাকা কমলেও পেঁয়াজ ও রসুনের দাম বেড়েছে। বাজারে দেশীয় পেঁয়াজের সরবরাহ কম থাকার কারণে দেশীয় পেঁয়াজের দাম বেশি থাকায় বাজারে আমদানিকৃত পেঁয়াজের চাহিদা বাড়ার কারণে আমদানিকৃত পেঁয়াজের দাম কিছুটা বাড়ছে। এদিকে, চিনির কেজিতে ২ টাকা কমেছে, অপরিবর্তিত আছে ডাল, তেলসহ অন্যান্য নিত্যপণ্যের দাম।

প্রতিদিনই বোরে মৌসুমের চাল আসছে বাজারে। অব্যাহত আছে চালের আমদানিও। এতে পাইকারি বাজারে চালের সরবরাহে এসেছে ইতিবাচক পরিবর্তন। যার প্রভাব পড়তে শুরু করেছে দামেও ।

পাইকাররা বলছেন, পুরাতন বিআর-২৮ চালের কেজি নেমে এসেছে ৪৩ টাকায় আর নতুন চাল বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকা কেজি। মিনিকেট ৫৬ থেকে ৫৮ টাকা আর নাজিরশাইলের প্রতিকেজি ৫৮ থেকে ৬৫ টাকা। সপ্তাহের ব্যবধানে ২ থেকে ৩ টাকা কেজিতে কমেছে।

পেঁয়াজ ও রসুনের দাম নিয়ে পাইকাররা বলেন, নতুন দেশী পেঁয়াজ বাজারে আসছে গত মাস থেকে। গত সপ্তাহে দেশী পেঁয়াজের কেজি প্রতি দাম ছিল ২৮ থেকে ৩০ টাকা। এ সপ্তাহে আদার দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। ইন্ডিয়ান পেঁয়াজ স্বাভাবিক আছে। আলু ও আদার বাজার স্বাভাবিক। রসুন কেজিতে দুই তিন টাকা বাড়ছে।

অন্যান্য নিত্যপণ্যের সম্পর্কে পাইকাররা বলেন, খোলা সয়াবিন তেল ৮৮ টাকা ও পামওয়েল ৭০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। প্যাকেটজাত আটার কেজি ৩০ টাকা আর প্রতি কেজি ময়দার দাম ৪৩ টাকা। মসুর ডালের দাম মানভেদে ৫২ থেকে ৯০ টাকা কেজি আর মুগডাল ৯০ থেকে ১৩০ টাকার মধ্যে। ছোলা বুট আছে ৬০ থেকে ৬৫ টাকা। চিনি এখন চলছে ৫০ টাকা। পাইকারি বাজারে স্থিতিশীল আছে সব ধরনের মসলার দামও।

পেঁয়াজের দাম ব্যবসায়ীরা বলছেন, সাপ্তাহিক ছুটি ছাড়াও ২৯ এপ্রিল বৌদ্ধ পূর্ণিমা, ১ মে পবিত্র শবে বরাত ও মে দিবস উপলক্ষে চার দিন হিলি স্থলবন্দরে আমদানি-রফতানি কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। এ কারণে ভারতীয় রফতানি করা পেঁয়াজের লোডিং কমিয়ে দেওয়ায় বন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানির পরিমাণ কমে গিয়েছে। এছাড়াও বাজারে দেশীয় পেঁয়াজের সরবরাহ কম থাকার কারণে দেশীয় পেঁয়াজের দাম বেশি থাকায় বাজারে আমদানিকৃত পেঁয়াজের চাহিদা বাড়ার কারণে আমদানিকৃত পেঁয়াজের দাম কিছুটা বাড়ছে।

শুক্রবার কারওয়ান বাজারে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শবে বরাত ও রমজান মাসকে সামনে রেখে মাংসের চাহিদা বেড়েছে। প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগি ১৩৫ থেকে ১৪০ টাকা, লেয়ার মুরগি ১৬০ থেকে ১৭০ টাকা, গরুর মাংস ৪৮০ থেকে ৫০০ টাকা ও খাসির মাংস ৬০০ থেকে ৬৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। সূত্র: সময়  টিভি, বাংলা ট্রিবিউন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত