প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘পরিকল্পিত কর্তব্য পালনের চেষ্টা থাকলে হকারমুক্ত ফুটপাত সম্ভব’

জুয়াইরিয়া ফৌজিয়া : যদি আন্তরিকতা, দৃঢ়তা এবং পরিকল্পিত কর্তব্য পালনের চেষ্টা থাকে, তাহলে অবশ্যই হকারমুক্ত ফুটপাত করা সম্ভব। আর ঘোষণা বা প্রকাশের মধ্যদিয়ে কোনো কাজের সমাধান হয়না বলে মন্তব্য করেছেন নগর পরিকল্পনাবিদ ইকবাল হাবিব।

ঘোষণার এক বছর পার হলেও ফুটপাত হকারমুক্ত করতে পারেনি ঢাকার দক্ষিণ সিটি করপোরেশন। পাশাপাশি বদলায়নি ফুটপাতের চিত্রও। গুলিস্তানসহ বিভিন্ন এলাকায় আগের মতোই পথচারীদের চলার পথ দখল করে আছেন হকাররা।

ঢাকা দক্ষিণের মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, সাধারণ মানুষের পথ চলার ক্ষেত্রে কোনো রকম প্রতিবন্ধতকা এই সিটি করপোরেশন মেনে নেবে না। হকারদের রুটি রুজির কথা চিন্তা করে আমরা ১৫,২০ দিনের মতো রিলাক্স দিয়েছিলাম। তবে ফুটপাতের হকার নিয়ন্ত্রণে সুনির্দিষ্ট কাঠামো তৈরির কাজ চলছে।

এদিকে মেয়রের আশ্বাসে খুব একটা আস্থা পাচ্ছেন না নগর পরিকল্পনাবিদেরা। উল্টো সিটি করপোরেশনের আন্তরিকতা নিয়েই তাদের প্রশ্ন।

রাজধানীর উত্তর ও দক্ষিণ সিটিতে প্রায় ৫’শ কিলোমিটার ফুটপাত রয়েছে। আর এর ৭৫ ভাগই হকারের দখলে।

এদিকে দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন বড় হকার মার্কেট গুলিস্তান। কোনোভাবেই গুলিস্তান থেকে হকার উচ্ছেদ করতে পারছে না। এরসঙ্গে ডিএসসিসির অধিকাংশ এলাকায় রাস্তার ওপর বাজার বসছে। ফুটপাত ও রাস্তার ওপর বাজার বসায় স্বয়ং মেয়র সাঈদ খোকন উদ্বেগে আছে।

সম্প্রতি গুলিস্তানের ফুটপাত হকারমুক্ত করতে ডিএসসিসির মেয়র কঠোর পদক্ষেপ নিলেও কোনো সফল হননি। ইদানীং গুলিস্তানের হকারদের পরিধি নগর ভবনের সামনে পর্যন্ত পৌঁছে গেছে। এরপরও ডিএসসিসি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বক্তব্য, নিয়মিত উচ্ছেদ অভিযান পরিচালিত হচ্ছে। এসব উচ্ছেদ অভিযান দায়সারা।

ডিএসসিসির মেয়র সাঈদ খোকন আরও বলেন, হকার উচ্ছেদ ও ফুটপাত দখলমুক্ত করতে পারলে ট্রাফিক যানজট কমবে। বর্তমানে উচ্ছেদ অভিযান যতটুকু পরিচালনা করছি এরচেয়ে ৫ গুণ বেশি হকার রাজপথ দখল করছে। হকাররা শুধু গুলিস্তান নয় এখন পাড়া-মহল্লার ফুটপাত দখলে নিয়েছে। এভাবে ফুটপাতে হকার ছড়িয়ে পড়ায় জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়ছে। এজন্য হকার উচ্ছেদের পর মনিটরিং জোরদার করতে হবে। অনেক সময় দেখা যায় একটি এলাকায় কাঁচাবাজার আছে। এরপরও কিছু দোকানি কাঁচাবাজারের বাইরে রাস্তার ওপর সবজি নিয়ে বসেছেন। বাজারে ক্রেতা কম আসে, রাস্তার ওপর থেকে বাজার করে বাসায় নিয়ে যান।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের বলেন, হকার উচ্ছেদ চলমান প্রক্রিয়া হওয়ার ব্যাপারে ডিএমপি কমিটি গঠন করেছে। কমিটির এ কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। উচ্ছেদ অভিযান বেগবান করলে আস্তে আস্তে রাজপথ হকারমুক্ত সম্ভব। যা পুলিশের একার পক্ষে সম্ভব নয়। এজন্য সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা, কাউন্সিলর, পুলিশ ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সমন্বিত অভিযান চালাতে হবে। এতে ফুটপাত হকারমুক্ত সম্ভব। সূত্র : ইনডিপেনডেন্ট টিভি, দৈনিক আমার সংবাদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত