প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সিলেটে ইলেকট্রনিক্স সিটি পরিদর্শনে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী

আশরাফ চৌধুরী রাজু, সিলেট: ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার সিলেট ইলেকট্রনিক্স সিটির কাজ নির্ধারিত সময় সীমার ভিতরে শেষ করতে নির্দেশ দিয়েছেন বাস্তবায়নকারী সংস্থা বাংলাদেশ নৌবাহিনীকে।

তিনি শুক্রবার বিকাল ৩টায় সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় অবস্থিত সিলেট বিভাগের একমাত্র প্রতিষ্টান সিলেট ইলেকট্রনিক্স সিটি পরিদর্শনকালে এ নির্দেশনা দেন। এ সময় এ প্রকল্পের পরিচালক ব্যারিস্টার গোলাম সরওয়ার ভুইঁয়া পরিদর্শনকারী দলকে হাই টেক পার্কের বিভিন্ন কার্যক্রমের অগ্রগতি মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টরের মাধ্যমে উপস্থাপন করেন।

তিনি জানান সিলেট শহর থেকে প্রায় ৩০ কি.মি. দূরে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় ১৬২.৮৩ একর জায়গা জুড়ে নির্মান হচ্ছে এ প্রকল্পটি। বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ দেশের বিভিন্ন স্থানে হাই-টেক পার্ক স্থাপনের উদ্যোগ গ্রহন করেছে। এর মধ্যে কয়েকটি হাই-টেক পার্কের নির্মান কাজ শেষ হয়েছে।

বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের চলমান প্রকল্পগুলোর মধ্যে সিলেট হাই-টেক পার্ক অন্যতম, যেটির প্রশাসনিক নাম “সিলেট ইলেকট্রনিক্স সিটি”। কর্তৃপক্ষ আশা করছে সিলেট হাই-টেক পার্ক নির্মানের ফলে বিশ্বমানের বিনিয়োগ পরিবেশ এবং সুযোগ সুবিধাদী সৃষ্টির মাধ্যমে দেশ ও আর্ন্তজাতিক পর্যায়ে আইটি/আইটিএস প্রতিষ্টান এবং ডেভেলপার প্রতিষ্টানকে আকৃষ্ট করা যাবে। ফলে আইসিটি পেশাজীবিদের জন্য বহু চাকরীর ক্ষেত্র তৈরী হবে।

তিনি আরোও জানান ইতিমধ্যে এ প্রকল্পটি ভুমি উন্নয়নের অধিকাংশ কাজ শেষ হয়েছে। বিনিয়োগের জন্য এখনই উপযুক্ত এ হাই-টেক পার্কটি।

বাংলাদেশ নৌ-বাহিনী পরিচালিত ডক-ইয়ার্ড অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং লিমিটেড কর্তৃক বাস্তবায়িত হচ্ছে এ প্রকল্পটি। তিনি জানান এখানে বছরে মাত্র ৪ মাস পানি থাকে তখন নৌ-পথে বালু এনে ভূমি উন্নয়নের কাজ করা হলেও শুষ্ক মৌসুমে এ কাজটি কঠিন হয়ে পড়ে। হাই-টেক কর্তৃপক্ষের কাজ বিদেশী বিনিয়োগকারীদের জন্য জায়গা তৈরী করে দেওয়া। সিলেটে ভূমি উন্নয়নের কাজ চলছে। কিছু কিছু স্থানে ভূমি উন্নয়নের কাজ শেষ হয়েছে। নৌ-বাহিনী আশাবাদী চলতি বছরের মধ্যেই মাটি ফেলার কাজ শেষ হবে।

এছাড়া ২০১৯ সালের শুরুর দিকে হাই-টেক পার্কের সকল কার্যক্রম শেষ হয়ে যাবে। তিনি জানান এখানে দৃষ্টিনন্দন একটি সেতুর নির্মানের (৫৩ মি. দৈর্ঘ্য এবং ১২.৪৫ মি. প্রস্থ) নির্মান কাজ চলছে। ৪৯ লক্ষ টাকা ব্যায়ে ৪০০০ স্কয়ার ফিটের আইসিটি ইনফরমেশন সেন্টারের নির্মান কাজ সমাপ্ত হয়েছে। ৩৩ কেবিএ বৈদ্যুতিক সংযোগ স্থাপন (৪.৫ কি.মি) এবং গভীর নলকূপ স্থাপনের কাজ শেষ হয়েছে। এছাড়াও তিনি এ প্রকল্পের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে পরিদর্শনকারী দলকে অবহিত করেন।

পরিদর্শনকারী দলের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রনালয় সর্ম্পকিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও সিলেট-৪ আসনের সংসদ সদস্য ইমরান আহমদ, স্থায়ী কমিটির সদস্য ও বরগুনা-২ আসনের সংসদ সদস্য শওকত হাসানোর, মহিলা সংসদীয় ৩ আসনের সংসদ সদস্য ও স্থায়ী কমিটির সদস্য এডভোকেট হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়া। এছাড়া প্রকল্পটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসনে আরা বেগম আইসিটি মন্ত্রনালয়।

এ সময় অনান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল বাছির, গোয়াইনঘাট কলেজের অধ্যক্ষ ফজলুল হক, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবু লেইছ, আওয়ীলীগ নেতা জাহাঙ্গীর হোসেন, কোম্পানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শফিকুর রহমান খান।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত