প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

গার্মেন্টস শ্রমিকদের ন্যুনতম ৮৩০০ দিতে সরকারের ইঙ্গিত, মালিকদের ইচ্ছা আরও কম

জাফর আহমদ: তৈরি পোশাক শিল্পের শ্রমিকদের ন্যুনতম মজুরি ৮ হাজার ৩০০ টাকা করার সবুজ সংকেত দিয়েছে সরকার। এ ক্ষেত্রে মালিক পক্ষ প্রাথমিক প্রস্তাব দিতে চায় ৭ হাজার থেকে ৭ হাজার ২০০ টাকা। আর শ্রমিক পক্ষ মনে করছে ন্যূনতম মজুরি ১৬ হাজার টাকার নীচে করলে উর্দ্বমুখি বাজার সামাল দেওয়া সম্ভব হবে না।
বর্তমানে গার্মেন্টস শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরি ৫ হাজার ৩০০ টাকা।

শ্রমিক নেতৃবৃন্দ জানায়, ২০১৩ সালে এ মজুরি নির্র্ধারন করে। তখনই শ্রমিকদের দাবি ছিল ৮ হাজার টাকা। মজুরির প্রশ্নে ২০১৩ থেকেই শ্রমিকদের অসেন্তাষ ছিল। এক বছরের মাথায় নিত্যপণ্যের দাম বৃদ্ধি পেলে শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধির দাবি গতি পায়। মজুরির আন্দোলনের কারণে ২০১৬ সালে ডিসেম্বর মাসে কয়েকজন শ্রমিককে সন্ত্রাস দমন আইনে আটক জেলে পাঠায়। এতে দেশে বিদেশে তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়। এরই ধারাবাহিকতায় মালিক পক্ষ শ্রমিকদের মজুরি নির্ধারণে ন্যূনতম মজুরি বোর্ড পূল:গঠনে সরকারের কাছে চিঠি লিখে।

শ্রম মন্ত্রণালয়ের একটি দায়িত্বশীল সুত্র জানায়, মজুরি বোর্ডে ন্যূনতম মজুরি ৮ হাজার ৩০০ টাকা করার ইঙ্গিত এসেছে প্রধািনমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে। এবং মজুরি বোর্ড গঠন থেকে ৬ মাসের মধ্যে এ মজুরির ঘোষণা আসতে পারে। সে অনুযায়ী মজুরি বোর্ডের আলোচনা এগুবে। সে ক্ষেত্রে চলতি বছরের জুলাই বা আগষ্টের প্রথম সপ্তাহে ঘোষণা আসতে পারে। এদিকে মালিক পক্ষ মজুরি বোর্ডে ৭ হাজার থেকে ৭ হাজার ৩০০ টাকা ন্যূনতম মজুরি দেওয়ার কথা ভাবছে বলে জানিয়েছে তৈরি পোশাক প্রস্তুত ও রপ্তানিকারক সমিতির (বিজিএমইএ) একজন নেতা। এ বিষয় চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে বিজিএমইএ শনিবার বৈঠকে বসছে।

এ ব্যাপারে গার্মেন্টস শ্রমিক অধিকার মঞ্চের কেন্দ্রীয় নেতা এ্যাডভোকেট মাহাবুবুর রহমান বলেন, মালিক ও সরকার পক্ষ মজুরি নিয়ে কি ভাবছে তা জানি না, আমরা নিত্যপণ্যের বাজার পরিস্থিতি ও শ্রমিকদের জীবন নির্বাহের খরচ বিবেচনা করে ১৬ হাজার টাকা ন্যূনতম মজুরি দাবি করেছি। সরকার নিশ্চই শ্রমিকদের জীবন যাত্রার খরচ বিবেচনায় রেখে মজুরি নির্ধারণ করবে। মজুরি নির্ধারণে শ্রমিকদের জীবন যাত্রার বিষয়টি বিবেচনায় না নিলে শ্রমিকদের সামাল দেওয়া যাবে না।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত