প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

দাবী না মানলে বড়পুকুরিয়া কয়লা খনিতে অনির্দিষ্টকালের পূর্ণ কর্মবিরতীর হুশিয়ারী

সোহেল সানী, পার্বতীপুর (দিনাজপুর): আগামী ১২ মে’র মধ্যে অর্গানোগ্রাম অনুযায়ী আউট সোসিং শ্রমিকদের স্থায়ী নিয়োগ প্রদান, বকেয়া ৯ মাসের বেতন-ভাতা প্রদান, প্রফিট বোনাস, ফেস বোনাসসহ বিভিন্ন ভাতা প্রদানসহ ১৩ দফা দাবি বাস্তবায়ন না করা হলে ১৩ মে থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য পূর্ণ কর্মবিরতী ঘোষণা করার হুশিয়ারী প্রদান করেছে পার্বতীপুরে অবস্থিত বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির শ্রমিক-কর্মচারীরা।

শ্রমিকদের এই ঘোষণার সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেছেন বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি এলাকার ক্ষতিগ্রস্থ ২০ গ্রামের সমন্বয় কমিটি।

আজ বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১ টায় বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি গেটের সামনে মানববন্ধন শেষে এই কর্মসূচী ঘোষণা করেন বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি রবিউল ইসলাম। এ সময় কমিটির সাধারন সম্পাদক আবু সুফিয়ান, সাবেক সভাপতি ওয়াজেদ আলী ও ক্ষতিগ্রস্থ ২০ গ্রামের সমন্বয় কমিটির আহ্বায়ক মিজানুর রহমান, মশিউর রহমান বুলবুল, মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলামসহ প্রায় ৬শতাধিক শ্রমিক-কর্মচারী ও এলাকাবাসী উপস্থিত ছিলেন।

আন্দোলনকারীদের দাবির মধ্যে উল্লেখযোগ্য দাবীগুলো হলো- চুক্তি অনুযায়ী সকল শ্রমিকদের নিয়োগ প্রদান, প্রতি বছর শতকরা ৪০ শতাংশ দক্ষ শ্রমিক নিয়োগ, সকল শ্রমিকদের ক্ষেত্রে গ্রাচুইটি প্রদান, আন্ডারগ্রাউন্ড শ্রমিকদের ৬ ঘন্টা ডিউটি করানো, রেশনিং ব্যবস্থা চালু, প্রফিট বোনাস, ফেস বোনাস, প্রোডাকশন বোনাস ও বৈশাখী ভাতা চালু, ক্ষতিগ্রস্থ ২০ টি গ্রামের বাড়ী-ঘরের দ্রুত স্থায়ী সমাধান, ক্ষতিগ্রস্থ এলাকার প্রত্যেক পরিবার থেকে খনিতে চাকুরী প্রদান, এলাকার নেতৃবৃন্দ ও শ্রমিক নেতাদের নামে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার প্রমুখ।

আন্দোলনকারীরা বলেন, গত ২০১৭ সালের আগষ্ট মাস থেকে বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির এক্সএমসি/সিএমসি’র শ্রমিক-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা বকেয়া রয়েছে। বিষয়টি জ্বালানী প্রতিমন্ত্রী, জ্বালানী উপদেষ্টাসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে অবহিত করা হলেও কোন কাজ হয়নি। যাতে করে শ্রমিক-কর্মচারীদের পরিবার দুর্বিসহ জীবন-যাপন করছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত