প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আবেদন করেও হুইল চেয়ার পাননি দুই মুক্তিযোদ্ধা

ডেস্ক রিপোর্ট : মুক্তিযোদ্ধা শামছুদ্দিন ও ফকর উদ্দিন পক্ষাঘাতগ্রস্ত হয়ে হুইল চেয়ারের জন্য আবেদন করেছিলেন। কিন্তু তাদের ভাগ্যে জোটেনি হুইল চেয়ার। হুইল চেয়ারের জন্য আবেদন করে দুই মুক্তিযোদ্ধা পরপারে পাড়ি জমালেও বরাদ্দ আসেনি হুইল চেয়ারগুলোর। হতভাগ্য দুই মুক্তিযোদ্ধার বাড়ি ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে।

উপজেলার উচাখিলা ইউনিয়নের মরিচারচর গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা ফখর উদ্দিন। স্ট্রোক করে প্যারালাইসড হয়ে পড়ায় প্রায় দেড় বছর আগে একটি হুইল চেয়ারের জন্য আবেদন করেন। হুইল চেয়ারের আবেদন করার প্রায় ছয় মাসের মাথায় মৃত্যু হয় ফখর উদ্দিনের। একই গ্রামের আরেক মুক্তিযোদ্ধা শামছুদ্দিনও পক্ষাঘাতগ্রস্ত হয়ে একটি হুইল চেয়ারের জন্য আবেদন করেন। প্রায় পাঁচ মাস আগে মারা যান তিনিও। মৃত্যুর আগে বিছানায় পড়ে থাকা মুক্তিযোদ্ধারা হুইল চেয়ারে বসার ক্ষণ গুনলেও সে ভাগ্য তাদের হয়নি। ফখর উদ্দিন ও শামছুদ্দিনের পাশাপাশি একটি হুইল চেয়ারের জন্য আবেদন করেন মৃত্যুপথযাত্রী মুক্তিযোদ্ধা গাজী আহম্মদ। তার বাড়ি রাজীবপুর এলাকায়। পক্ষাঘাতগ্রস্ত হয়ে একটি হুইল চেয়ারের জন্য আবেদন করলেও তার ভাগ্যে মেলেনি হুইল চেয়ার। আবেদন করে দীর্ঘ দিনেও হুইল চেয়ার না মেলায় ঈশ্বরগঞ্জ পৌর কর্তৃপক্ষ ১০ এপ্রিল মুক্তিযোদ্ধা গাজী আহাম্মদকে একটি হুইল চেয়ার উপহার দিয়েছেন।

দুস্থ-অসহায় মুক্তিযোদ্ধারা জীবনের ক্লান্তিলগ্নে এসে সরকারি একটি হুইল চেয়ারের জন্য আবেদন করেও না পাওয়ায় ক্ষোভ জানিয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা মফিদুল ইসলাম চৌধুরী নোমান। তিনি বলেন, হুইল চেয়ারের জন্য আবেদন করে মুক্তিযোদ্ধাদের ভাগ্যে তা জোটেনি। ঈশ্বরগঞ্জ মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমাণ্ডার ও ঈশ্বরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মো. আবদুস ছাত্তার বলেন, হুইল চেয়ারের জন্য আবেদন করা হলেও তা পাওয়া যায়নি। ওই অবস্থাতেই মৃত্যু হয়েছে দুই মুক্তিযোদ্ধার। বিষয়টি নিয়ে হতাশা প্রকাশ করেন তিনি।

উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মো. মিজানুল ইসলাম আকন্দ বলেন, বেশ কিছু দিন আগে আবেদন করা হলে সেগুলো যথাযথ কর্তৃপক্ষের দপ্তরে পাঠানো হয়; কিন্তু তারা বরাদ্দ না পাওয়ায় মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে সেগুলো বিতরণ করতে পারেননি। সূত্র : সমকাল

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত