প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘গর্ভে নড়াচড়া না হলেও নবজাতক জীবিত থাকতে পারে’

রিকু আমির : গর্ভে নড়াচড়া না হলেও নবজাতক জীবিত থাকতে পারে, এমন নবজাতকের ক্ষেত্রে অভিভাবক এবং চিকিৎসকদের খুব সতর্ক থাকা প্রয়োজন বলে মনে করেন ঢাকা শিশু হাসপাতালের পরিচালক এবং খ্যাতিমান শিশু সার্জন অধ্যাপক আবদুল আজিজ।
এ হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় নবজাতক মীমের মৃত্যু ঘটে সোমবার দিবাগত রাতে। সোমবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে অপারেশনের মাধ্যমে ভূমিষ্ঠ হয়েছিল মীম। কিন্তু মৃত ঘোষণা করায় দাফনের উদ্দেশে নেয়া হয় আজিমপুর গোরস্থানে। সেখানে গোসল করানোর সময় শিশুটি চিৎকার শুরু করে। এরপর আজিমপুর শিশু মাতৃসদন হাসপাতাল হয়ে ঢাকা শিশু হাসপাতালে ঠাঁই হয় মীমের।
ঘটনা সম্পর্কে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে অধ্যাপক আবদুল আজিজ বলেন, নবজাতকের মা রক্তশূন্যতায় ভূগছিলেন। ঢাকা মেডিকেলে আসার পূর্বে ধামরাইয়েই কোনো এক হাসপাতালে তিনি রক্তগ্রহণ করেন, সেসময় তার খিঁচুনিও হয়েছিল। এটা গর্ভবতীর জন্য খুবই ভয়ের লক্ষণ। রক্ত নেয়ার পর আনা হয়েছিল সাভারের একটি হাসপাতালে। কিন্তু অবস্থা ভাল না দেখে সেই হাসপাতাল ঢাকা মেডিকেলে আনার পরামর্শ দেয়।
তিনি বলেন, সাধারণত গর্ভে নবজাতক নড়াচড়া করে। না-ও করতে পারে। নড়াচড়া না করলেই যে নবজাতকের মৃত্যু হয়েছে- এটা মন্তব্য করার আগে দক্ষ গাইনি বিশেষজ্ঞ দিয়ে পর্যবেক্ষণ অবশ্যই জরুরি। নবজাতকের হৃদস্পন্দন ও শ্বাসপ্রশ্বাসের গতি প্রাপ্ত বয়স্কের মতন নয়। মারা যাওয়া নবজাতক ভূমিষ্ঠ হবার পর চিকিৎসকরা কীভাবে পর্যবেক্ষণ করেছিলেন বা আদৌ পর্যবেক্ষণ করেছিলেন কি-না, সেই চিকিৎসক এ বিষয়ে দক্ষ কি-না- এসব ভাবার বিষয়।
অধ্যাপক এমএ আজিজ বলেন, নবজাতক ভূমিষ্ঠ হবার তিন মিনিটের মধ্যে যদি কান্না না করলে তার মস্তিষ্কে বড় ধরণের ক্ষতির আশঙ্কা জোরালো হয়। মারা যাওয়া নবজাতক কান্না করেনি বলেই হয়তো মৃত ঘোষণা করা হয়েছিল। কিন্তু আরও সতর্ক হলে এ ঘটনা হয়তো এড়ানো যেত।
মীমের মৃত্যুতে বেশ দুঃখ প্রকাশ করে শিশু হাসপাতালের পরিচালক বলেন, নবজাতকটিকে শিশু হাসপাতালে আনার পর লাইফ সাপোর্ট ও ওষুধ প্রয়োগের মাধ্যমে শ্বাসপ্রশ্বাসের গতি স্বাভাবিক করা হয়। এতে আমাদের মধ্যে আশা বেড়ে যায়। কিন্তু সেই রাতে হঠাৎ তার শ্বাসপ্রশ্বাসের অবনতি হতে শুরু করে এবং দ্রুত অবনতি হয়। এমনিতেও নবজাতকটি অপরিপক্ক অবস্থায় ভূমিষ্ঠ হয়, মাত্র সাত মাসে। নয় মাস সাতদিন হলো স্বাভাবিক সময়। ওর ওজনও ছিল কম, মাত্র ৯০০ গ্রাম।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত