প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ইমরুল-আনামুলের ব্যাটে দক্ষিণাঞ্চলের লিড

নিজস্ব প্রতিবদক : খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে প্রথম দিন উত্তরাঞ্চলকে ১৮৭ রানেই গুটিয়ে দিয়ে ব্যাটিংয়ে নেমেছিল দক্ষিণাঞ্চল। পরে দ্বিতীয় দিন আজ বুধবার ইমরুল কায়েসের ১০৭ ও এনামুল হক বিজয়ের ৮৯ রানে ভর করে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৩৬৫ রান তুলেছে দক্ষিণাঞ্চল। ২উইকেট হাতে রেখেই ইনিংস ঘোষণা করে উত্তরকে আবারও ব্যাটিংকে পাঠান অধিনায়ক সোহান। দ্বিতীয় দিনশেষে বিনা উইকেটে রান তুলতে পেরেছে। ১৪৬ রানে পিছিয়ে থেকে তৃতীয়দিন খেলতে নামবে দু’দল।

বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের শেষ রাউন্ডে ইমরুল সেঞ্চুরি ছুঁতে পারলেও বিজয় তীরে এসে তরী ডুবিয়েছেন। প্রথম ইনিংসে নর্থরা গুটিয়ে যায় ১৮৭ রানে। জবাবে মঙ্গলবার দিন শেষে সাউথের দুই ব্যাটসম্যান ইমরুল কায়েস ৫১ ও এনামুল হক বিজয় ৫২ রানে অপরাজিত থাকলে তাদের সংগ্রহ দাঁড়ায় এক উইকেটে ১১৫ রান। ম্যাচের দ্বিতীয় দিনের সকালে আগেরদিনের মতোই শুরু করেন ইমরুল-বিজয় জুটি।

চোট কাটিয়ে বিসিএলের তৃতীয় রাউন্ডে সেঞ্চুরি করে ইমরুল নির্বাচকদের আস্থা অর্জন করেছিলেন, ডাক পেয়েছিলেন শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ঘরের মাঠে ত্রিদেশীয় সিরিজের দলে। তৃতীয় ওপেনার হিসেবে টিকে যান টি-টুয়েন্টি দলেও।

সেঞ্চুরির পরই ইমরুল খেই হারান। ফরহাদ রেজার বলে ক্যাচ দেন উইকেটরাক্ষকের হাতে। ইমরুলের সেঞ্চুরির দিনে আক্ষেপে পুড়েছেন এনামুল হক বিজয়। এ ওপেনার ৮৯ রান করে হয়েছেন এলবিডব্লিউ। বোলার সেই ফরহাদ রেজা।

দ্বিতীয় উইকেটে বিজয়-ইমরুলের ১৮৪ রানের জুটিতেই ভাল সংগ্রহের ভিত পায় সাউথ জোন। জুটি বিচ্ছিন্ন হওয়ার সময় সাউথের লিড ১৮। সেই লিড বাড়িয়ে নিতে অবদান রাখেন মোহাম্মদ মিঠুন ও তুষার ইমরান। মিঠুন ৪৯ রান করে এলবিডব্লিউ হন আরিফুল হকের বলে। ৬৫ রান করে তুষার ফেরেন বোল্ড হয়ে, ফরহাদ তৃতীয় শিকার তিনি।

শেষে আরও দুই উইকেট তুলে নিয়ে ফরহাদ তার নামের পাশে লেখান পাঁচ উইকেট। শফিউল ইসলাম, আরিফুল হক ও তাইজুল ইসলাম নিয়েছেন একটি করে উইকেট।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ