প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ডিএমপির ডিজিটাল ট্রাফিক সিস্টেম
ভিডিও দেখে ১৫ মাসে ২৭ হাজার মামলা, বাড়ানো হচ্ছে বডি ক্যামেরা

সুশান্ত সাহা : উন্নত দেশের আদলে রাজধানীতে ট্রাফিক সিস্টেম উন্নত হচ্ছে। তবে হাতের ইশারায় চলছে যানবাহন নিয়ন্ত্রণের কার্যক্রম। বর্তমানে ট্রাফিক আইন অমান্য বন্ধ করতে ভিডিও রেকর্ডের মাধ্যমে মামলা দিচ্ছে ঢাকা মেট্রপলিটন পুলিশের ট্রাফিক বিভাগ। মালিকের অজান্তেই রেকর্ড হয়ে যাচ্ছে আইন ভাঙার ছবি এবং সেই সূত্র ধরেই মামলা হচ্ছে গাড়ির মালিকের বিরুদ্ধে। ভালো ফল পাওয়ায় এই ব্যবস্থা আরো উন্নত করার পরিকল্পনা করছে পুলিশ। এছাড়াও সড়কে সিসিটিভির ফুটেজ দেখে মামলা দেয়া ও ট্রাফিক পুলিশের জন্য বডি ওর্ন ক্যামেরা বাড়ানোর পরিকল্পনা হতে নিয়েছে পুলিশ।

রাজধানীর সড়কে শৃঙ্খলা আনতে ১৫ মাস আগে এই ব্যবস্থা চালু করেছে ডিএমপি। এরইমধ্যে ভিডিওচিত্রের ওপর ভিত্তি করে মামলা হয়েছে ২৭ হাজারের বেশি গাড়ির মালিকের বিরুদ্ধে। এতে ভালো ফল পাওয়া যাচ্ছে বলছেন পুলিশ কর্মকর্তারা।

রাজধানীতে ভিডিওচিত্রসহ প্রমাণ রেখে ব্যবস্থা নেওয়ার প্রক্রিয়া ট্রাফিক বিভাগের উত্তর, দক্ষিণ, পূর্ব ও পশ্চিম এই চার বিভাগে রয়েছে চারটি মিডিয়া টিম। তারা চাহিদামতো ও ঘুরে ঘুরে ট্রাফিক আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে মামলা দিচ্ছেন। বিশেষ করে অবৈধ পার্কিং, উল্টোপথে চলাচলকারীদের বিরুদ্ধে এ মামলা বেশি দেওয়া হচ্ছে বলে জানান ট্রাফিক পুলিশের কর্মকর্তারা।

ভিডিও ও ছবিসহ মামলা হওয়ায় প্রভাবশালীদের দাপট দেখানোর সুযোগও অনেকটা কমেছে বলে দাবি করছেন মাঠপর্যায়ের ট্রাফিক পুলিশ কর্মকর্তারা। তাদের দাবি, সরাসরি কারও বিরুদ্ধে মামলা দিতে গেলে প্রথমে তারা (অভিযুক্ত) মানতে চান না। অনেকেই ক্ষমতার দাপট দেখান। কিন্তু ভিডিওসহ মামলা চালু হওয়ার পর থেকে তারা আর সেই সুযোগ পাচ্ছেন না।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের ট্রাফিক বিভাগ সুত্রে জানা যায়, চলতি বছরের গত জানুয়ারি মাস থেকে মার্চ মাস পর্যন্ত দুই লাখ ৫৯ হাজার ৯১২ মামলা দেয়া হয়েছে। জরিমানা করা হয়েছে, ১৪ কোটি ৬২ লাখ ৫৪ হাজার ১৮৮ টাকা। এছাড়াও বিশেষ অভিযানে ২ হাজার ৮৩০ মামলা দেয়া হয়।

এদিকে ট্রাফিক আইন অমান্যসহ দায়িত্বে থাকা পুলিশদের সঙ্গে যাত্রী ও চালকদের অসদাচরণ এবং প্রভাবশালীদের উল্টোপথে গাড়ি চালানো ছাড়াও নানা অনিয়ম বিষয় মাথায় নিয়েই ডিএমপি ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর রাজধানীতে চালু করে বডি ওর্ন ক্যামেরা প্রকল্প।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) মীর রেজাউল আলম বলেন, ট্রাফিক ব্যবস্থা আরো উন্নত করার জন্য কাজ চলছে। ট্রাফিক আইন মেনে চলতে সচেতন করা হচ্ছে চালক ও মালিকদের।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ