প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চীনের অংশ হয়ে থাকতে পারে তিব্বত: দালাই লামা

আসিফুজ্জামান পৃথিল : তিব্বতের আধ্যাত্মিক গুরু দালাইলামা বলেছেন, অর্থনৈতিক স্বার্থ বিবেচনায় তিব্বত অঞ্চলটি চীনের অংশ হয়ে থাকতে পারে।

ভারতের রাজধানী নয়া দিল্লিতে আয়োজিত এক লেকচারে দালাই লামা বলেন, ‘ঐতিহাসিক ও সাংস্কৃতিকভাবে তিব্বত সবসময় স্বাধীন ছিলো। ১৯৫০ সালে চীন এই অঞ্চলটির নিয়ন্ত্রণ নেয়, যাকে তারা বলছে শান্তিপূর্ণভাবে স্বাধীন করা অঞ্চল। চীনের সংবিধান যতদিন আমাদের সংস্কৃতি এবং তিব্বত স্বশাসিত অঞ্চলের বিশেষ ইতিহাসকে স্বীকৃতি দেবে ততদিন অঞ্চলটি চীনের সঙ্গে থাকতে পারে।’

১৯৫৯ সালে চীনের সেনাবাহিনী তিব্বতের বিচ্ছিন্নতাবাদি নেতাদের বিরুদ্ধে দমন অভিযান শুরু করার পর দালাই লামা ভারতে এসে আশ্রয় নেন এবং তারপর থেকে গত ছয় দশক ধরে ভারতেই অবস্থান করছেন। চীন বিশেষজ্ঞ কোনদাপালি এ বিষয়ে বলেছেন, ‘আসলে দালাই লামা অনেকদিন ধরেই এ কথা বলছেন। তবে, এখন অনেকটা সুনির্দিষ্ট ও স্পষ্টভাবে বলছেন । এ মাসেই চীন সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তাই দালাই লামার বক্তব্য বেশ সহায়ক হবে। সম্প্রতি আমরা দেখতে পাচ্ছি যে চীনের ব্যাপারে ভারত তার আগ্রাসী সুর নরম করেছে। সে চীনের সঙ্গে সম্পর্ক জোরদার করতে চায়।’

‘বৈশ্বিক শান্তি ও সংহতি জোরদারে নৈতিকতা ও সংস্কৃতির ভূমিকা’ শীর্ষক ওই লেকচারে দালাই লামা প্রাচীন ঐতিহ্যকে আধুনিক শিক্ষা ব্যবস্থায় অন্তর্ভুক্ত করার পক্ষে মত দেন। তিনি বলেন, কীভাবে প্রাচীন ঐতিহ্যকে আধুনিক শিক্ষা ব্যবস্থায় যুক্ত করা যায় তা নিয়ে আলোচনা শুরু করা উচিত। বিশ্বের সমস্যাগুলো নিরসনে আধুনিক শিক্ষা ব্যবস্থার সঙ্গে প্রাচীন ঐতিহ্যকে সমন্বয়ের ক্ষমতা ভারতের রয়েছে। এটা ভারতকে সন্ত্রাসবাদ ও বৈশ্বিক উষ্ণতার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সাহায্য করবে।

তিব্বতের এই নেতাকে রাজনৈতিক আশ্রয়দানের জন্য বেইজিং প্রায়ই ক্ষোভ প্রকাশ করে থাকে। অরুনাচল প্রদেশে দালাই লামার সফর দুই দেশের বিরোধের অন্যতম বিষয় হিসেবে বিরাজ করছে। তবে, ভারত বলছে যে দালাই লামা হলেন একজন আধ্যাত্মিক নেতা। তাই তার ভারতের যে কোন অংশে যাতায়াতের সুযোগ রয়েছে। – সাউথ এশিয়ান মনিটর

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ