প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শুভ জন্মদিন শচীন!

আবু হোসাইন শুভ : শুভ জন্মদিন শচীন টেন্ডুলকার। ক্রিকেটের বরপুত্র আজ পা দিলেন ৩৮-এ। যে বয়সে খেলোয়াড়েরা খেলা-টেলা ছেড়ে দিয়ে সাবেকের কাতারে নাম লেখান।

টেলিভিশনে বিশেষজ্ঞ ধারাভাষ্য, কোচিং কিংবা পত্রিকায় টুকটাক কলাম লিখে সময় কাটান, ঠিক সে সময়ই ক্রিকেটের সর্বকালের এই সেরা তারকা মাঠে খেলে চলেছেন নিরান্তর। সবচেয়ে মজার ব্যাপার, যত দিন যাচ্ছে, ততই যেন শাণিয়ে উঠছে তাঁর অনন্য সাধারণ প্রতিভা।

২২ বছরের ক্রিকেট ক্যারিয়ারে এমন কোনো রেকর্ড কিংবা সাফল্য নেই যে তাঁর পায়ে এসে লুটিয়ে পড়েনি। ১৭৭টি টেস্ট খেলে ৫৬ দশমিক ৯৪ গড়ে ১৪,৬৯২ রান। ৪৫৩টি ওয়ানডে ম্যাচে ৪৫ দশমিক ১৬ গড়ে ১৮,১১১ রান। নিরানব্বইটি আন্তর্জাতিক শতরান। এসব রেকর্ডই তো বলে দিচ্ছে শচীন টেন্ডুলকার ক্রিকেট ইতিহাসের কোন জায়গাটি একান্ত আপন করে নিয়েছেন।
শচীন টেন্ডুলকার আজ তাঁর জন্মদিনে কোনো উত্সব করবেন না।

পরিবারের সঙ্গেই কাটিয়ে দেবেন তাঁর ৩৮ বছর বয়সে পদার্পণের দিনটি। স্ত্রী অঞ্জলি ও সঙ্গে দুই সন্তান রমেশ আর সারাহর সঙ্গেই তিনি থাকতে চাইবেন আজ সারাটা দিন। তবে আইপিএলে মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের অধিনায়কত্বের গুরু দায়িত্বের কারণে হয়তো জন্মদিনের দিনটি তিনি একান্তে পাবেন না। হয়তো ক্রিকেটের আলোচনা তাঁর এই আনন্দময় দিনটির অনেকটুকুই দখল করে নিতে পারবে। তবে খবরে প্রকাশ আধ্যাত্মিকভাবে তিনি যাঁর ভক্ত, সেই সাঁই বাবার মৃত্যু হয়তো শচীনের ৩৮তম জন্ম তিথিকে অনেকটাই মলিন করে দিয়েছে। নিজের সাফল্যে-ব্যর্থতায়, হতাশায় তিনি ভরসা রাখতেন ভারতের এই আধ্যাত্মিক ধর্মীয় নেতার ওপর।

১৯৯৯ সালেরই ক্রিকেটের আরেক কিংবদন্তি স্যার ডন ব্র্যাডম্যান টেন্ডুলকারের ব্যাটিংশৈলীর সঙ্গে নিজের ব্যাটিংয়ের মিল খুঁজে পেয়েছিলেন। সেই থেকে শুরু তুলনার। দীর্ঘ এক যুগ ধরে ব্র্যাডম্যানের সঙ্গে তাঁর তুলনা হয়েছে। জল্পনা-কল্পনা হয়েছে তাঁর শ্রেষ্ঠত্ব নিয়ে। এই এক যুগে ক্রিকেটের সব ক্ষেত্রেই নিজের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণ করে দিয়েছেন তিনি। ভারতকে বানিয়েছেন টেস্টের এক নম্বর শক্তি আর ওয়ানডের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন। তিনি নিজের নামটি ক্রিকেটের সঙ্গে এমন অঙ্গাঙ্গি জড়িয়ে ফেলেছেন যে অনেক ভক্ত-সমর্থকই কেবল নয়, ক্রিকেট ভালোবাসেন এমন অনেক মানুষই শচীন ছাড়া ক্রিকেট কল্পনাও করতে পারেন না। তার পরও সময়ের আবর্তে শচীন একদিন বিদায় নেবেন ক্রিকেট থেকে। তবে তিনি এই খেলাটিকে করে যাচ্ছেন ঋণী। ক্রিকেটকে দিয়ে যাচ্ছেন এমন কিছু যা নিয়ে ক্রিকেট গর্ব করতে পারবে আরও অনন্তকাল।

একজন ব্যাটসম্যানের পক্ষে যত ধরনের কৃতিত্ব দেখানো সম্ভব তার সবই দেখিয়েছেন ভারতীয় ক্রিকেটের এই ‘ওয়ান্ডারবয়’। সমসাময়িক কোনো ক্রিকেটার শচীনের ধারে-কাছে যাওয়ারও স্বপ্ন দেখেন না। স্বপ্ন দেখেন না এই কারণে, যে তিনি যেসব রেকর্ডের অংশ হয়ে গেছেন, সেগুলো ভাঙতে হয়তো দরকার পড়বে আরও একজন শচীন টেন্ডুলকারের। কিন্তু শচীনরা কি বারবার আবির্ভূত হন! এই প্রশ্নটা আজ ক্রিকেট বিশ্বের আকাশে-বাতাসে উতলা হয়েই উড়ে বেড়াচ্ছে।

শচীনের তুলনা কেবল শচীনই। তিনি সর্বকালের, সর্ব যুগের শ্রেষ্ঠতম ক্রিকেটার। এটা কোনো অতিআবেগী বিশ্লেষণ নয়। এটি স্বীকার করে নিয়েছেন ক্রিকেটসংশ্লিষ্ট সবাই। হয়তো ব্র্যাডম্যান বেঁচে থাকলে তাই বলতেন। হয়তো খুশি হয়েই বলতেন।
শচীন তো কেবল ভারতেরই নয়, গোটা ক্রিকেট বিশ্বেরই গর্ব। ৩৮তম জন্মদিনে তোমাকে জানাই কোটি-সহস্র সালাম! সূত্র : প্রথম আলো

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত