প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আমিরাতে যেতে কেউ যেন কাউকে টাকা না দেয়: প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রী

তরিকুল ইসলাম : প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বলেছেন, সংযুক্ত আরব আমিরাতে নতুন করে ১৯ ক্যাটাগরিতে কর্মী পাঠানোর বিষয়ে দেশটির সঙ্গে এমওইউ সই হয়েছে। আমি সবাইকে বলব এই ১৯ ক্যাটাগরিতে আমিরাতে যাওয়ার জন্য কেউ যেন কাউকে টাকা না দেয়। আমরা আশা করছি তিন মাসের মধ্যই পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু করা যাবে। গত ১৭ এপ্রিল দুই দেশের মধ্যে সই হওয়া সমঝোতা স্মারকের বিষয়ে বিস্তারিত জানাতে সোমবার প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, সমঝোতা স্মারক অনুযায়ী ১৯টি ক্যাটাগরির লোক বিষয়টি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের সঙ্গে সঙ্গে কার্যকর হয়েছে। সংযুক্ত আরব আমিরাতের মানবসম্পদ ও এমিরাটাইজেশন মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধায়নে কর্মী নিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান ‘ম্যানেজমেন্ট সেন্টারের’ মাধ্যমে বাংলাদেশি কর্মীদের নিয়োগ করা হবে। ‘ম্যানেজমেন্ট সেন্টার’ ইউএই সরকারের মানবসম্পদ ও এমিরাটাইজেশন মন্ত্রণালয়ের নিয়ন্ত্রণে সরাসরি কাজ করবে। এ কাজে ওই দেশের অন্য কোনো রিক্রুটমেন্ট এজেন্সির কোনো ভূমিকা থাকবে।

এ সময় প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব নমিতা হালদার বলেন, আমিরাতে যে লোক পাঠানো হবে, তাতে নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সবাই যেতে পারবে। ১৯ শাখায় লোক নেয়ার বিষয়ে যে সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে, তার অধীনে দুই দেশকে নিয়ে কমিটি গঠন করা হবে। আর এই কমিটি ঠিক করবে কীভাবে কত খরচে লোক যাবে। যে ১৯টি শাখায় শ্রমিক পাঠানোর বিষয়ে সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে সেগুলো হলো: গৃহশ্রমিক, ব্যক্তিমালিকানাধীন জাহাজের নাবিক, নিরাপত্তাকর্মী, রাখাল, গাড়িচালক, গাড়ি পার্কিংয়ের শ্রমিক, ঘোড়া পালার সরিষ, বাজপাখি পালক, গৃহভৃত্য, গৃহ তত্ত্বাবধায়ক, প্রাইভেট কোচ, শিশু পরিচর্যাকারী, কৃষি শ্রমিক, মালি, ব্যক্তিগত সেবির্কা, ব্যক্তিগত সহকারী, কৃষিবিদ এবং পাচক।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত