প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

খুলনা সিটি নির্বাচন: ৭৮ শতাংশ ভোট কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত

হ্যাপী আক্তার : খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ৭৮ শতাংশ ভোট কেন্দ্রকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করেছে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ। ভোটের দিন ঝুঁকিপূর্ণ ভোট কেন্দ্রে অধিক গুরুত্ব দিয়ে সেখানে ৫ হাজার পুলিশ মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তাছাড়া নগরীর প্রবেশ ও বের হওয়ার পথসহ ২৫ পয়েন্টকে চিহ্নিত করে শুরু হয়েছে তল্লাশির কাজ। ভোটের আগে ও পরে সব ধরনের সহিংসতা এড়াতে শুরু হয়েছে বিশেষ অভিযান।

২০১৩ সালে খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ৩১ ওয়ার্ডে প্রায় ৭২ শতাংশ ভোট কেন্দ্রকে চিহ্নিত করেছিল আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। আসছে নির্বাচনে সেই পরিস্থিতির আরো অবনতি হয়েছে।

২৮৯টি কেন্দ্রের মধ্যে আইনশৃঙ্খলার পরিস্থিতি অবনতির আশঙ্কা করা হচ্ছে ২২৬টিতেই। শতকরার মধ্যে যা ৭৮ শতাংশ। অথচ গতবারের চেয়ে কেন্দ্র বেড়েছে মাত্র ১টি।

আধিপত্য বিস্তারের সম্ভাবনা থাকে বা কোনো কেন্দ্রে যদি রাস্তার কারণে গাড়ি নিয়ে যাবার সুযোগ না থাকে, সে সমস্ত বিষয়গুলো বিবেচনা করে অধিক গুরুত্ব দেওয়া হয়ে থাকে ভোট কেন্দ্রগুলোকে।

পুলিশ বলছে প্রার্থীদের নিরাপত্তার বিষয়টিকে অধিক গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। সেই সাথে ভোটাররা যাতে নিশ্চিন্তে ভোট কেন্দ্রে যেতে পারে সে জন্য নগরিতে শুরু হয়েছে বিশেষ অভিযান।

কেএমপি’র অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিলনার সোনালী সেন বলেছেন, সিটি নির্বাচনে গুরুত্বপূর্ণ প্রার্থীর প্রতি কোনো হুমকি আছে কিনা সে বিষয়টি নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ইতোমধ্যেই গোয়েন্দা তৎপরতা শুরু হয়েছে।

কেএমপি’র পুলিশ কমিশনার মো. হুমায়ুন কবির বলেছেন, একটা স্পেশাল টিম থাকবে। তার সাথে কেন্দ্রের বাইরে পিকেএফ থাকবে যাতে করে কেন্দ্রে আসা ভোটারদেরকে কেউ যেন কোনো ধরনের হয়রানি না করতে পারে।

কমিশন বলছে প্রার্থীদের আচরণ বিধি নজড়ে রাখাসহ ভোটের পরিবেশ বজায় রাখতে প্রতিক বরাদ্দের আগেই মাঠে নামছে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা।

খুলনা আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ইউনুস আলী বলেছেন, নির্বাচন কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ৩১ জন্য এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মাঠে থাকবেন। জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের বিষয়ে এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি তবে এর এটি ১০ সংখ্যার কম নয় তার বেশি থাকবে।

গত সিটি নির্বাচনের চেয়ে এবার খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটারে সংখ্যা বেড়েছে প্রায় ৫৩ হাজার। সূত্র : যমুনা টিভি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ