প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

৫ মেয়র প্রার্থীর নির্বাচনী ব্যয়ের উৎস

খুলনা সিটি করপোরেশন (কেসিসি) নির্বাচনে মেয়র পদে ৫ জন প্রার্থী লড়াই করবেন।

প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী দলের মহানগর শাখার সভাপতি তালুকদার আব্দুল খালেক, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী দলের মহানগর সভাপতি ও কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম মঞ্জু, জাতীয় পার্টি মনোনীত শফিকুর রহমান, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত অধ্যক্ষ মাওলানা মুজ্জাম্মিল হক এবং বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি-সিপিবি মনোনীত দলের মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান বাবু।

আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী তালুকদার আবদুল খালেক নির্বাচনীয় প্রচার-প্রচারণায় নিজের অর্থ ১৫ লাখ টাকা ব্যয় করবেন।

বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জু নির্বাচনী ব্যয়ের উৎস হিসেবে দেখিয়েছেন নিজের বাড়ি ভাড়া থেকে দুই লাখ টাকা, আইনজীবী স্ত্রী সৈয়দা সাবিহার কাছ থেকে দুই লাখ, ব্যবসায়ী শ্যালক সৈয়দ গোফরানুজ্জামানের কাছ থেকে তিন লাখ, মুজগুন্নি পুলিশ লাইন এলাকার খন্দকার শহীদুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তির কাছ থেকে ধার হিসেবে পাঁচ লাখ ও খুলনা সদর থানা বিএনপির সভাপতি আবদুল জলিল খান কালামের অনুদান তিন লাখ টাকা।

জাতীয় পার্টির মেয়র প্রার্থী এস এম শফিকুর রহমান নির্বাচনী ব্যয়ের উৎস হিসেবে দেখিয়েছেন তার কৃষিজাত পণ্য বিক্রি থেকে পাঁচ লাখ টাকা, জমিজমার ব্যবসা করা ভাই ওয়াসিকুর রহমানের কাছ থেকে ধার দুই লাখ, জমিজমার ব্যবসা করা আরেক ভাই মফিজুর রহমানের কাছ থেকে অনুদান এক লাখ, মহানগরীর মুন্সীপাড়া এলাকার কাজী হাসানুর রশীদ নামের এক ব্যক্তির কাছ থেকে ধার দুই লাখ ও ফারাজীপাড়া রোডের আনিসুর রহমান মিলটন নামের এক ব্যক্তির অনুদান এক লাখ টাকা।

সিপিবির মেয়র প্রার্থী মিজানুর রহমান বাবু নির্বাচনী ব্যয়ের উৎস হিসেবে দেখিয়েছেন নিজস্ব ব্যবসা থেকে এক লাখ টাকা, তার চাকরিজীবী ভাই মসিউর রহমানের কাছ থেকে এক লাখ ও সিপিবি খুলনা জেলা কমিটির অনুদান ১০ হাজার টাকা।

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মেয়র প্রার্থী মো. মুজাম্মিল হক নির্বাচনী ব্যয়ের উৎস হিসেবে দেখিয়েছেন নিজের ব্যবসা থেকে এক লাখ টাকা, ছেলে তানভীরের কাছ থেকে ধার ৫০ হাজার, আরেক ছেলে মঞ্জুরুলের কাছ থেকে অনুদান ৫০ হাজার, সোনাডাঙ্গা এলাকার মুফতি আমানুল্লাহ ও আমজাদ হোসেন নামের দুই ব্যক্তির কাছ থেকে ধার ৫০ হাজার, গোয়ালখালী এলাকার আবদুল আউয়াল নামের এক ব্যক্তির কাছ থেকে অনুদান এক লাখ ও ডা. মোখতার হুসাইন নামের আরেক ব্যক্তির কাছ থেকে দান এক লাখ টাকা।

কেসিসি নির্বাচন রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে মনোনয়নপত্রের সাথে জমা দেয়া প্রার্থীদের নির্বাচনী ব্যয়ের উৎস বিবরণীতে (ঢ-ফরম) এসব তথ্য দেখা গেছে।

উল্লেখ্য, আগামী ১৫ মে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে খুলনা সিটি করপোরেশন (কেসিসি) নির্বাচন। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই কার্যক্রম শেষে এখন পর্যন্ত মেয়র পদে ৫ জন, সাধারণ ৩১টি ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে ১৮২ জন এবং ১০টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ৫৭ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত