প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা নিশ্চিতে সরকারের মর্জি বোঝা মুশকিল: মির্জা ফখরুল (ভিডিও)

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, কারাবন্দি খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা চেয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আর এতে সুরাহা না হলে আদালতে যাব। খালেদা জিয়ার মুক্তির আশাবাদের কথাটা এই সময় খাটে না। কারণ বর্তমান সরকারের আমলে কখন কী হয়, তাদের মর্জি কী হবে, এটা বলা মশকিল। পাশাপাশি দল প্রধানকে কারাগারে রেখে গাজীপুর ও খুলনা সিটির ভোটে লড়ার কারণ হলো এতে ভোটারদের সহানুভূতি পাবেন ধানের শীষের প্রার্থীরা।

ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এসব কথা জানান মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

কারাবাসের দু-মাসের মাথায় ৭ এপ্রিল বাইরে আনা হয় খালেদা জিয়াকে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেলে হয় স্বাস্থ্য পরীক্ষা। তবে বিএনপির দাবি চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী স্বাস্থ্য পরীক্ষা হয়নি। এমআরআই, রক্ত পরীক্ষা না করে সে দিন হয়েছে শুধু এক্সরে। পাশাপাশি সঠিক চিকিৎসা না পাওয়ার বিএনপি চেয়াপারসনের স্বাস্থ্যের অবনতি হচ্ছে বলেও জানাচ্ছেন জ্যেষ্ঠ নেতারা।

এ অবস্থায় কারামুক্তির আন্দোলনের পাশাপাশি খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা নিশ্চিতে একাধিক উদ্যোগ নিচ্ছে বিএনপি।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসার জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে দেখা করতে পারি। দুই আমরা কোর্টে যেতে পারি। দেখি কোনটা করা যায়।

দল প্রধানের দণ্ড হওয়ার পর দ্রুত জামিনে আশাবাদী থাকলেও এখন আর তা নিয়ে ভাবছেন না বিএনপি মহাসচিব। খালেদা জিয়ার জামিন নির্ভর করছে সরকারের ইচ্ছার ওপরে।

তিনি বলেন, আগামী ৮ তারিখ একটা দিন রয়েছে, সেখানে বুঝা যাবে সরকার কোন দিকে যাচ্ছে। খালেদা জিয়ার মুক্তির আশাবাদের কথাটা এই সময় খাটে না। কারণ বর্তমান সরকারের আমলে কখন কি হয়, তাদের মর্জি কি হবে, এটা বলা মুশকিল।

চেয়ারপারসনকে কারাগারে রেখে নির্বাচনে অংশ না নেয়ার ঘোষণা দিলেও গাজীপুর ও খুলনা সিটির ভোটে বিএনপি কেন লড়ছে?

প্রশ্নের জবাবও মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, দেশ নেত্রীকে অন্যায়ভাবে কারাগারে রাখা হয়েছে। এটা ভোটাররা অন্যায়ের প্রতিবাদ হিসেবে গ্রহণ করবে। খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে বিএনপির সিনিয়র নেতাদের ঐক্য আরো সুদৃঢ় হয়েছে। সূত্র: ইন্ডিপেনডেন্ট টিভি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত