প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চিকিৎসা নেব না জনগণের কাছে যাবো: গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী

ইলিয়াছ রিপন, মিরসরাই (চট্টগ্রাম): দুই দফা অসুস্থতা কাটিয়ে অনুষ্ঠানে যোগ দেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী, মিরসরাইয়ের সাংসদ ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন ।

শুক্রবার মিরসরাইয়ের ১৩নং মায়ানী ইউনিয়নের সৈদালীতে গণহত্যা দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে আলোচনায় অংশ নেন।

মন্ত্রীর শারীরিক অবস্থা বিবেচনা করে অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়া নিয়ে শঙ্কিত ছিলেন দলীয় নেতাকর্মীরা। সবশেষ গত সপ্তাহে নন্দনকানন বাসার কাছের ডিসি হিলে প্রাতঃভ্রমণের সময় হোঁচট খেয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে ভর্তি হন। চোটের কারণে নাক দিয়ে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। এসময় চিকিৎসকরা তাকে ঢাকায় চিকিৎসা নেওয়ার পরামর্শ দেন।

সেদিনও হাসপাতালের বেডে শুয়ে নির্বাচনী এলাকা মিরসরাইয়ে নির্ধারিত অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার জন্য উদগ্রীব ছিলেন বর্ষীয়ান এই আওয়ামী লীগ নেতা।

তিনি নেতাকর্মীদের বলেছেন, ‘চিকিৎসা নেব না, আমি জনগণের কাছে যাবো, জনগণ আমার সকল প্রাণের উৎস।’ মন্ত্রীর এ কথায় নেতা উপস্থিত সবাই বিষ্মিত হয়েছিল। কেননা তার আগের সপ্তাহেও সচিবালয়ে নিজ কক্ষে নিজের বাম হাত অবশ বোধ অসুস্থ হয়ে পড়ার পর তাকে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরো সায়েন্স অ্যান্ড হসপিটালে ভর্তি করা হয়েছিল।

গতকাল সৈদালীতে অনুষ্ঠানে গিয়ে একাত্তরে বর্বচরিত গণহত্যার স্থান পরিদর্শন করেন। এছাড়াও অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের জন্য তার অনুদানে নির্মিত ঘরগুলো পরিদর্শন করেন। পরে সৈদালী জামে মসজিদ প্রাঙ্গনে ঈদগাহ মাঠে প্রধান অতিথি হিসেবে গণহত্যা দিবসের আলোচনা বক্তব্য রাখেন।

তিনি বলেন, দেশের অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র খৈয়াছরা ঝর্ণার জন্য ২৯ কোটি টাকা বরাদ্ধ দেওয়া হয়েছে। ভ্রমন পিয়াসু মানুষদের জন্য ওয়াকওয়ে সহ বিভিন্ন পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। অপরদিকে, ইচাখালীর চরে নির্মাণাধীন দেশের বৃহত্তম ইকোনমিক জোনে মিরসরাইয়ের বেকার যুবকেরা চাকুরী পাবে বলেও তিনি আশ্বস্ত করেছেন।

মায়ানী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কবির নিজামীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন নিজামপুর বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের শিক্ষক সৈদালী নাগরিক কমিটির আহ্বায়ক জসীম উদ্দিন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ভারপ্রাপ্ত উপজেলা চেয়ারম্যান ইয়াছমিন শাহীন কাকলী, উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মহি উদ্দিন রাশেদ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ আতাউর রহমান, সহ-সভাপতি ও মায়ানী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান এম এ আলা উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী, প্রাক্তন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ফেরদৌস হোসেন আরিফ।

বক্তব্য রাখেন খইয়াছরা ইউপি চেয়ারম্যান জাহেদ ইকবাল চৌধুরী, আওয়ামী লীগ নেতা জুনু মেম্বার, গণহত্যার প্রত্যক্ষদর্শী নুরল আলম প্রমুখ। পরে গণহত্যা হতাহত পরিবারে মাঝে অনুদান প্রদান করা হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত