প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ফরমালিনমুক্ত আম চেনার উপায়

জুয়াইরিয়া ফৌজিয়া : আমাদের চারপাশে মধুমাস জৈষ্ঠের মৌ মৌ গন্ধ। বাজারে সুমিষ্ট ফল আম, কাঁঠাল, লিচু, জামসহ প্রভৃতি রসালো ফল পাওয়া গেলেও এর মধ্যে ফল রসিকদের কাছে সবচেয়ে পছন্দের ও প্রিয় ফলটি হলো আম। তবে আম দীর্ঘদিন ভালো রাখার জন্য আম ব্যবসায়ীরা এ সময় আমে ফরমালিন ব্যবহার করে থাকেন, যা মানবদেহের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর।

এ সময়ে রমরমা ব্যবসা করতে অসাধু ব্যবসায়ীরা রাসায়নিক পদার্থ দিয়ে দ্রুত আম পাকান। তাই আম যেখানে শরীরের জন্য উপকারী হওয়ার কথা, সেখানে ফরমালিন-কার্বাইড মিশ্রিত হওয়ায় তা হয়ে উঠছে শরীরের জন্য ক্ষতিকর। তাই বাজারে আম কিনতে গেলে বিপাকে পড়ে যান সাধারণ মানুষ। তারা বুঝে উঠতে পারেন না কোন আমে ফরমালিন আছে, আর কোন আমে ফরমালিন নেই।

এইজন্য আম কেনার সময় আপনাকে সচেতন থাকতে হবে, আম রাসায়নিকমুক্ত কিনা। রাসায়নিকমুক্ত আম চেনার কিছু সহজ উপায়-আম কিনতে গেলে একটি বিষয় অবশ্যই খেয়াল করবেন তা হল- আমের ওপর মাছি বসে কিনা। আমে রাসায়নিক থাকলে মাছি বসবে না। গাছপাকা আম হলে দেখবেন, আমের গায়ে সাদাটে ভাব থাকে। কিন্তু ফরমালিন বা অন্য রাসায়নিকে চুবানো আম হয় ঝকঝকে সুন্দর ও পরিষ্কার। গাছপাকা আমের ত্বকে দাগ থাকে। রাসায়নিকে পাকানো আমের গা হয় দাগহীন। কারণ কাঁচা অবস্থাতেই পেড়ে ওষুধ দিয়ে পাকানো হয়।

আম মুখে দেয়ার পর যদি দেখেন যে, কোনো সৌরভ নেই কিংবা আমে টক-মিষ্টি কোনো স্বাদই নেই বুঝবেন যে আমে ওষুধ দেয়া। আম কেনা হলে কিছুক্ষণ রেখে দিন। এমন কোথাও রাখুন যেখানে বাতাস চলাচল করে না। গাছপাকা আম হলে গন্ধে মৌ মৌ করবে চারপাশ। ওষুধ দেয়া আমে এই মিষ্টি গন্ধ হবেই না।

গাছপাকা আমের গায়ের রঙও আলাদা। গোঁড়ার দিকে একটু গাঢ় রঙ। রাসায়নিক দেওয়া আমের আগাগোড়া হলদে রঙ হয়ে যায়। হিমসাগরসহ আরও বেশ কিছু জাতের আম পাকলেও সবুজ থাকে। গাছপাকা হলে এসব আমের ত্বকে বিচ্ছিরি দাগ পড়ে। রাসায়নিক দিয়ে পাকানো হলে আমের ত্বক হয় মসৃণ ও সুন্দর।

আম কেনার আগে নাকের কাছে নিয়ে ভালো করে শুকুন। গাছপাকা আম হলে অবশ্যই বোঁটার কাছে চেনা গন্ধ পাবেন। ওষুধ দেওয়া আমে গন্ধ খুব বেশি থাকে না কিংবা বাজে বা ঝাঁজালো গন্ধ থাকে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ