প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পোশাকেও বিপ্লব ঘটাচ্ছেন সৌদি নারীরা

সাঈদা মুনীর: সৌদি আরবে খেলাধুলার উপযোগী ও রঙিন আবায়া (সৌদি আরবের নারীদের বিশেষ পোশাক) খুব দ্রুত নারীদের স্বাভাবিক পোশাকে পরিণত হচ্ছে। একসময় দেশটির কট্টর রক্ষণশীল সমাজব্যবস্থায় এ পোশাককে সাংস্কৃতিক বিপ্লব হিসেবে দেখা হতো।

বোরকার স্পোর্টস ভার্সন সৌদি নারীদের কাজে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। গত মাসে সৌদি আরবের জেদ্দায় নারী অ্যাথলেটরা বোরকার এই নতুন সংস্করণ পড়ে জগিং করছেন,এইরকম একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ভাইরাল হয়েছিল। খবর সৌদি গ্যাজেটের।

স্থানীয়ভাবে স্পোর্টস আবায়া নামে পরিচিত এইসব বোরকার জনপ্রিয়তা দেখে বিস্মিত হয়েছেন বোরকার ফ্যাশন ডিজাইনার ইমান জোহার্জি। বার্তাসংস্থা এএফপিকে তিনি জানান, এটার এখন বিশাল চাহিদা। বিভিন্ন রঙের এই স্পোর্টস বোরকা পড়াকে সৌদি নারীদের ক্ষমতায়নের অন্য একটি প্রতীক বলে তিনি অভিহিত করেন।

জিপারওয়ালা জাম্পস্যুটের মতো দেখতে এই স্পোর্টস বোরকা নারীদের সারা শরীর ঢেকে রাখলেও পড়তে বেশ আরামদায়ক এবং কোনোরকম বাধাপ্রাপ্ত না হয়ে নড়াচড়া করা যায়।

জনপ্রিয় এ পোশাকটি পিশতাশিও গ্রিন ও সাদা রঙে পাওয়া যাচ্ছে যেটা সৌদি আবহাওয়ায় পড়তে আরাম। পোশাকটিতে ব্যবহার করা হয়েছে ফ্রেঞ্চ পপলিনের মতো ন্যাচারাল ফেব্রিকস যার কারণে এটা পড়ে ঘামলেও শরীরের সঙ্গে লেগে থাকে না।

এতদিন সৌদি আরবে বোরকা মানেই ছিল কালো রঙের পোশাক। ৪৩ বছর বয়স্ক এই ডিজাইনার সৌদি ফ্যাশনের সে ধারাকে ভেঙেছেন। এই স্পোর্টস বোরকার সঙ্গে মাথায় স্কার্ফ পড়ে তার উপর বেসবল টাইপ ক্যাপ পড়ে অনেক সৌদি নারী নতুন ধরনের সৌদি ফ্যাশন ট্রেন্ড চালু করেছেন।

স্পোর্টস বোরকার সর্বশেষ স্টাইলটি স্থানীয় ফুটবল ক্লাবগুলোর থিমের সঙ্গে মিলিয়ে করা হচ্ছে। এর মাধ্যমে সৌদি নারীরাও তাদের পছন্দের ফুটবল ক্লাবকে সমর্থন জানাতে পারছেন।
জোহার্জি এএফপিকে আরও বলেন, আবায়া দেখতে অনেকটা ইন্ডিয়ান শাড়ির মতো, আবায়া আমাদের নিজস্ব পরিচয়ের একটা অংশ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত