প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

দেশে ইন্টারনেট ব্যাংকিংয়ের সক্ষমতা ৭৪ শতাংশ

আনোয়ার হোসেন: বাংলাদেশের ৭৪ শতাংশ ব্যাংক ইন্টারনেট ব্যাংকিং প্রদানের সক্ষমতা রাখে। যা ২০১৪ সালের শেষে ছিলো ৪৮ শতাংশ। সম্প্রতি বিআইবিএম এর গবেষণায় উঠে আসে এমন তথ্য। ২০১৭ সালে ইন্টারনেট ব্যাংকিং এর গ্রাহক সংখ্যা ছিলো ১৭ লক্ষ ৪২ হাজার এবং লেনদেনের পরিমাণ সংখ্যা ছিলো প্রায় ৭২ লক্ষ ৭৮ হাজার। তবে খুব দ্রæত ইন্টারনেট ব্যাংকিং এগিয়ে যাওয়া চিত্রও উঠে আসে এই গবেষণায়। ২০১১ সালে যেখানে ইন্টারনেট ব্যাংকিং এর লেনদেন হয় ৪১ বিলিয়ন; সেখানে ২০১৭ সালে এসে এর পরিমাণ দাড়ায় ৩৬৪ বিলিয়ন। ৬ বছরের ব্যবধানে যার উন্নতি হয়েছে ৮৯ শতাংশ। তবে মূল পরিবর্তনের শুরুটা হয় ২০১৪ সাল থেকে। ২০১৩ সাল থেকে ২০১৪ সালে ৯০ বিলিয়ন থেকে পরিবর্তণ হয়ে ২১৭ বিলিয়নে গিয়ে পৌঁছে।

ইন্টারনেট ব্যাংকিং সুবিধার ক্ষেত্রে ব্যাংক থেকে মোবাইল ব্যাংকিংয়ে লেনদেনের অগ্রগতি হয়েছে । যা ২০১৪ সালে ছিলো ৪ শতাংশ; আর ২০১৭ তে এসে তা হয়েছে ১৬ শতাংশ। তবে ওয়াইমেক্স রিচার্জ স্ুিবধার ক্ষেত্রে তেমন কোন অগ্রগতি হয়নি। এছাড়া ক্রেডিট কার্ড থেকে নিজস্ব হিসাবে লেনদনের পরিমাণেও তেমন কোন অগ্রগতি হয়নি।

সমিক্ষায় দেখা যায়, সকল ব্যাংকই সফটওয়্যার টোকেন ব্যবহার করে; কিন্তু ২৬ শতাংশ ব্যাংক অন্যান্য সফটওয়্যার ও হার্ডওয়ার টোকেন ব্যবহার করে। আর মাত্র ৪ শতাংশ ব্যাংক বায়োমেট্রিক পদ্ধতি ব্যবহার করে। অন্যদিকে অনলাইনে নিরাপদ ব্যাংকিংয়ের জন্য দুই স্তর বিশিষ্ট অথেন্টিকেশন তথা ২এফএ-এর ব্যবহার বিশেষ সুবিধা দিচ্ছে। এটি ব্যবহারকারীদেরকে ইমেইল, ফেইসবুক ও অন্যান্য অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে নিশ্চয়তা প্রদান করে। ৭১ শতাংশ ব্যাংক ই-ব্যাংকিং এর ক্ষেত্রে ২এফএ পদ্ধতি ব্যবহার করছে।

গবেষনা পেপারে ইন্টারনেট ব্যাংকিং এর কিছু সমস্যা ও ঝুঁকির কথাও তুলে ধরা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে, ইন্টারনেট রোমিং সম্পর্কে ব্যাংক শাখার অনেক কর্মকর্তার অদক্ষতা ও ওয়েব সার্ভারের ভঙ্গুর সংযুগ ব্যবস্থা। আর এসএসএল তথা ইন্টারনেটে ব্যক্তিগত তথ্য আদান প্রদান এর দূর্বলতা ও পরিবর্তনে সমন্বহীনতাও অন্যতম বড় সমস্যা। এছাড়া সাইবার হামলা ও এ সংক্রান্ত বিষয়ে গ্রাহকদের সচেতন করাও ইন্টারনেট ব্যাংকিং এর ক্ষেত্রে বড় চ্যালেঞ্জ।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি এই গবেষণায় ৪২ টি ব্যাংকের উপর পর্যবেক্ষণ করে এই রিচার্জ পেপার প্রস্তুত করা হয়েছে। বিআইবিএম এর এই গবেষণা প্রতিবেদনের শিরোনাম ছিলো ‘আইটি অপারেশন্স অব ব্যাংকস’।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত