প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সিরিয়া ইস্যুতে ট্রাম্পকে বুঝিয়েছিলেন ম্যাক্রোঁ

লিহান লিমা: সিরিয়া থেকে মার্কিন সৈন্য প্রত্যাহার না করতে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে বুঝিয়েছিলেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। মার্চে ট্রাম্প ঘোষণা দিয়েছিলেন, যুক্তরাষ্ট্র সিরিয়া থেকে খুব শীঘ্রই সৈন্য প্রত্যাহার করে নিচ্ছে। এরপর উল্টো ট্রাম্পকে সিরিয়াতে দীর্ঘদিন অবস্থানের বিষয়ে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ করে ছাড়েন ম্যাক্রোঁ।

শনিবার যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য এবং ফ্রান্স রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের অভিযোগে সিরিয়াতে একযোগে বিমান হামলা চালায়। ম্যাক্রোঁ বলেন, ‘আমিই ট্রাম্পকে সিরিয়াতে মার্কিন সৈন্য রাখার বিষয়ে বুঝিয়েছিলাম। সেই সঙ্গে বিমান হামলা নিয়ন্ত্রণে রাখার কথাও বলেছি। আমাদের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে। সামরিক পদক্ষেপ নেয়ার আগে আমরা অনেকবার কথা বলেছি। তবে ম্যাক্রোঁর মন্তব্যের পর হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র সারাহ হাকেবি স্যান্ডার্স বলেন, ‘সিরিয়াতে যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থানের কোন পরিবর্তন হবে না। প্রেসিডেন্ট বলতে চেয়েছেন, যদি সম্ভব হয় তবেই মার্কিন সৈন্য দেশে ফিরে আসতে পারে। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্র সেই সঙ্গে সিরিয়াতে আইএসকে সর্ম্পূণরুপে ধ্বংস করতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

এছাড়া জাতিসংঘে মার্কিন রাষ্ট্রদূত নিকি হ্যালি বলেন, সিরিয়াতে যুক্তরাষ্ট্রের তিনটি উদ্দেশ্য রয়েছে। প্রথমত, আমরা এটি নিশ্চিত হতে চাই যে দেশটির আর কোথাও রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার করা হবে না এবং আমরা যে কোন মূল্যে আমাদের স্বার্থ সুরক্ষায় কাজ করে যাব। দ্বিতীয়ত, আইএসকে সম্পূর্ণরুপে পরাজিত করা এবং এই অঞ্চলের স্থিতিশীলতা নিশ্চিতকরণ। আর তৃতীয়ত, আমরা এই অঞ্চলে ইরানের কোন প্রভাব থাকবে না এটি নিশ্চিত হতে চাই।

হ্যালি আরো বলেন, যুক্তরাষ্ট্র যুদ্ধ চায় না কিন্তুপ্রেসিডেন্টের কাছে এটি সর্বশেষ উপায় ছিল। আমরা মানুষ হত্যা করতে চাই না। এটি আমেরিকার নীতির সঙ্গে যায় না। আমরা বাশার আল আসাদ সরকারকে এই বার্তা দিতে চাই যে, তাদের রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার বন্ধ করতে হবে। এছাড়া হ্যালি রাশিয়ার উপর যুক্তরাষ্ট্রের নতুন বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা দেন। আনাদুলু, বিবিসি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ