প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শিক্ষা ও চাকরিতে কোটা সংরক্ষণের প্রতিবাদে ফের ভারত বন্ধ

লিহান লিমা: শিক্ষা ও চাকরিতে কোটা সংরক্ষণের প্রতিবাদেই মঙ্গলবার ফের ভারত বন্ধের ডাক দিল একাধিক সংগঠন। মূলত, জাতিভিত্তিক সংরক্ষণের প্রতিবাদেই এই বন্ধ। এর আগে গত সপ্তাহে তপশিলি জাতি-উপজাতি সংরক্ষণ আইন শিথিল করার প্রতিবাদে ভারত বন্ধের ডাক দিয়েছিল একাধিক দলিত সংগঠন।

ভারত বন্ধ সমর্থকদের দাবি, জাতি বা সম্প্রদায়ের ভিত্তিতে নয় আর্থিকভাবে দুর্বলদের জন্য সংরক্ষণ থাকা উচিত যাতে প্রত্যেক সমাজের মানুষ সমাজের মূল ধারায় আসতে পারে। দেশে নিম্নবর্ণের তপসিলি জাতি/উপজাতি ও অন্যান্য অনগ্রসর শ্রেণির জন্য সংরক্ষণ ব্যবস্থা চালু রয়েছে। উচ্চবর্ণের মানুষজন তার বিরোধিতায় এবার মাঠে নেমে বিক্ষোভ কর্মসূচিতে শামিল হয়েছেন। মূলত ভারতের উচ্চবর্ণের পক্ষ থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভারত বন্ধের ডাক দেয়ায় বিভিন্ন রাজ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।

মঙ্গলবার শিক্ষা ও চাকরিতে জাতি ও সম্প্রদায়ের ভিত্তিতে সংরক্ষণের বিরোধিতায় ভারত বন্ধকে কেন্দ্র করে বিভিন্নস্থানে সহিংসতা, ভাঙচুর, সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। বিহারে ১২ জনের আহত হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে। এছাড়া রাজ্যটিতে বন্ধ সমর্থক ও বিরোধীদের মধ্যে সংঘর্ষে উভয়পক্ষের মধ্যে গুলি চালানোর ঘটনা ঘটেছে। আরাতে পাল্টাপাল্টি পাথর নিক্ষেপের ঘটনায় ৭ জন আহত হয়েছেন। বিহার ও ওড়িশায় বিক্ষোভকারীরা ট্রেন অবরোধ করে। মধ্যপ্রদেশের ভিন্দ ও মোরেনায় বিক্ষোভোর পর কারফিউ জারি করে প্রশাসন। উত্তরপ্রদেশ, পাঞ্জাবসহ কয়েখটি রাজ্যে ফিরোজাবাদে স্কুল-কলেজসহ দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা বন্ধ রাখার সিন্ধান্ত নেয়া হয়। রাজস্থান ও উত্তরপ্রদেশের কয়েকটি জেলায় ইন্টারনেট পরিসেবা বন্ধ রাখা হয়েছে। মধ্যপ্রদেশে ১৪৪ ধারা কার্যকর করা হয়েছে। অনেক রাজ্যে আধাসামরিক বাহিনী ও অতিরিক্ত মোতায়েন করা হয়েছে। নিউজ ১৪, ওয়ান ইন্ডিয়া

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত