প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আপনারা প্রতিশোধ নিলে আমি শহর ছাড়বো : রামনবমীর দাঙ্গায় নিহতের বাবা

আসিফুজ্জামান পৃথিল : রামনবমীতে হিন্দুত্ববাদী সন্ত্রাসীদের হামলায় নিহত হয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের আসানসোলের মাধ্যমিক পরিক্ষার্থী সিবতুল্লাহ রাশিদি। নিহতের বাবা মাওলানা ইমদাদুল রাশিদি আসানসোলের একটি মসজিদের ইমাম। ছেলের মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর একটি ধর্মীয় সমাবেশে তিনি সকল পক্ষের প্রতি শান্তির আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি উপস্থিত সকলকে কোন প্রকার প্রতিশোধ না নেবার জন্য অনুরোধ করেন। তিনি আরো বলেন, কেউ যদি প্রতিশোধ নেয় তিনি ইমামতির কাজ ছেড়ে দেবেন। শুধু তাই নয়, তিনি আসানসোল শহর ছেড়েও চলে যাবেন বলে জানান।

মঙ্গলবার বিকেলে আসানসোলের রেলপাড়া এলাকায় সংগঠিত দাঙ্গার পর থেকেই সিবতুল্লাহকে পাওয়া যাচ্ছিলনা। বিভিন্ন সূত্রমতে তাকে হিন্দুত্ববাদী দাঙ্গাকারীরা তুলে নিয়ে যায়। বুধবার শেষ রাতে তার বিকৃত মরদেহ পাওয়া যায় এবং বৃহস্পতিবার তার পরিবার তা সনাক্ত করে। ধারণা করা হচ্ছে তাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

মাওলানা ইমদাদুল রাশিদি তার ছেলের হত্যাকা- সম্পর্কে ভারতীয় গণমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে বলেছেন, ‘সে যখন বাহিরে যায় বাহিরে তখন হাঙ্গামা চলছিল। তাকে দুষ্কৃতীকারিদের একটি দল তুলে নেয়। আমার বড় ছেলে পুলিশকে একথা জানায়। কিন্তু পুলিশ তাকে অপেক্ষা করিয়ে রাখে। পরে আমরা জানতে পারি পুলিশ তার লাশ পেয়েছে। তাকে সকালে সনাক্ত করা হয়।’

বৃহস্পতিবার বিকেলে অসংখ্য পুলিশের উপস্থিতিতে সিবতুল্লাহকে দাফন করা হয়। এরপর শহরের ঈদগাহ ময়দানে শান্তির আহ্বান জানিয়ে বক্তব্য রাখেন মাওলানা রাশিদি। তিনি বলেন, ‘আমি শান্তি চাই। আমার সন্তানকে আমার কাছ থেকে ছিনিয়ে নেয়া হয়েছে। আমি চাইনা আর কোন পরিবার তাদের ভালোবাসার মানুষকে হারাক। আমি চাইনা আর কোন বাড়িতে আগুন জ্বলুক। আমি সবাইকে বলতে চাই আপনারা যদি কেউ প্রতিশোধ নেন আমি আসানসোল ছেড়ে চলে যাবো। আমি আপনাদের বলবো, আপনারা যদি আমাকে ভালোবাসেন আপনারা কেউ একটা আঙুলও তুলবেন না।’

চেতলাডাঙ্গা নদীপাড় নূরানী মসজিদের এই ইমাম আরো বলেন, ‘আমি ৩০ বছর ধরে ইমামতি করছি। আমার দ্বায়িত্ব জনগনকে সঠিক পথ প্রদর্শন করা। শান্তির পথ প্রদর্শন করা। আমাকে আমার ব্যক্তিগত ক্ষতির উর্ধ্বে উঠতে হবে। আসানসোলের মানুষ এমন নয়। এটি একটি ষড়যন্ত্র’। -ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত