প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বরিশালে খননকৃত খাল দখল করে পাকা স্থাপনা নির্মাণ

খোকন আহম্মেদ হীরা, বরিশাল: বিএডিসির অর্থায়নে ও স্থানীয় প্রশাসনের মাধ্যমে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে খাল খননের একবছর যেতে না যেতেই সরকারী খাল এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগের জমি অবৈধভাবে দখল করে পাকা স্থাপনা নির্মাণ কাজ শুরু করেছে প্রভাবশালীরা।

ঘটনাটি জেলার গৌরনদী উপজেলার মাহিলাড়া বাজার ও নলচিড়া ইউনিয়নের হাজীপাড়া বাজার সংলগ্ন এলাকার।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত বছর বিএডিসির অর্থায়নে মাহিলাড়া-ভীমেরপাড় এক কিলোমিটার মরা খাল পূনঃখনন করে খালে পানির প্রবাহ ফিরিয়ে আনা হয়। খাল খননের এক বছর যেতে না যেতেই গত কয়েকদিন পূর্বে মাহিলাড়া ইউনিয়নের বাঘার গ্রামের বাবুল আকন ও মাহিলাড়া গ্রামের আলমগীর বয়াতী খালের বৃহতঅংশ অবৈধভাবে দখল করে পাকা স্থাপনা নির্মাণ কাজ শুরু করেছেন।

সূত্রে আরও জানা গেছে, মাহিলাড়া-ছয়গ্রাম খালের মাহিলাড়া বাজার সংলগ্ন এলাকায় খাল দখল করে বিএনপি নেতা লোকমান আকনের দ্বিতল ভবন নির্মানের ফলে স্থানীয়দের মধ্যে সরকারী খাল দখলের প্রতিযোগিতা চলছে। অপরদিকে গত বছর মাহিলাড়া বাজারের পশ্চিম পাশে মাহিলাড়া বাজার থেকে ভীমেরপাড় সড়কে সওজের জমি অবৈধ দখলদার মুক্ত করে রাস্তা নির্মান করে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ।

সরেজমিনে দেখা গেছে, সরকারী কোন নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে স্থানীয় প্রভাবশালী মঙ্গল সরদারসহ একাধিক ব্যক্তিরা সওজের জমি অবৈধভাবে দখল করে পাকা স্থাপনা নির্মান করছেন।

এ বিষয়ে মঙ্গল সরদারের ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, বিরোধীয় জমি নিয়ে সড়ক ও জনপথের সাথে তাদের মামলা চলছে। তবে মামলা চলমান অবস্থায় পাকা স্থাপনা নির্মানের বৈধতা আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি ফোনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে তা বন্ধ করে রাখেন। অপর দখলদার বাবুল আকন, আলমগীর বয়াতী ও লোকমান আকনের ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তারা ফোন রিসিফ না করায় কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এ প্রসঙ্গে মাহিলাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সৈকত গুহ পিকলু জানান, কৃষকদের সুবিধার্থে সরকারী অর্থায়নে খাল খনন ও স্থানীয়দের যাতায়াতের সুবিধার্থে সরকারী সম্পত্তি থেকে অবৈধ স্থাপনা ভেঙ্গে দিয়ে রাস্তা নির্মান করা হয়েছে। খালের মধ্যে পাকা স্থাপনা নির্মান ও সওজের জমি দখলের বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

অপরদিকে নলচিড়া ইউনিয়নের দক্ষিণ পিঙ্গলাকাঠী গ্রামের হাজীপাড়া বাজার সংলগ্ন খালের মধ্যে পাকা স্থাপনা নির্মান করেছেন স্থানীয় কতিপয় প্রভাবশালীরা। এ বিষয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম হাফিজ মৃধা জানান, বিষয়টি আমার জানা নেই। উপজেলা নির্বাহী অফিসার খালেদা নাছরিন জানান, খাল ও সরকারী সম্পত্তি দখলের বিষয়ে খোঁজ খবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত