প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বাংলাদেশ-ভারত সেনাবাহিনীর যৌথ সাইক্লিং অভিযান সমাপ্ত

ইসমাঈল হুসাইন ইমু : মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের শুভক্ষণে এক আড়ম্বরপূর্ন অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে সোমবার রংপুর সেনানিবাসে অনুষ্ঠিত হলো বাংলাদেশ-ভারত যৌথ সাইক্লিং অভিযান (২য় পর্ব) এর সমাপনী অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে ৬৬ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি ও রংপুর এরিয়া কমান্ডার মেজর জেনারেল মো. মাসুদ রাজ্জাক প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। সোমবার আন্ত:বাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর) এ তথ্য জানিয়েছে।

আইএসপিআর জানায়, গত ১২ মার্চ যশোর সেনানিবাস থেকে এই অভিযান শুরু হয় এবং কলকাতা-বর্ধমান-পলাশী-রামকান্তপুর-মালদা-রায়গঞ্জ-কিসানগঞ্জ-শিলিগুড়ি-জলপাইগুড়ি-বিন্নাগুড়ি-কুচবিহার-বুড়িমারী ইত্যাদি স্থানসমূহ প্রদক্ষিন শেষে ২৬ মার্চ সকালে রংপুর সেনানিবাসে এসে সমাপ্ত হয়। এতে বাংলাদেশ ও ভারতীয় সেনাবাহিনীর সর্বমোট ৩০ জন সাইক্লিষ্ট সেনাসদস্য অংশগ্রহন করেন।

সাইক্লিং দল যশোরের বেনাপোল সীমান্ত দিয়ে ভারতে প্রবেশ করে দীর্ঘপথ অতিক্রমের পর বুড়িমারী সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশের পর রংপুর সেনানিবাসে পৌঁছালে সেখানে উপস্থিত মুক্তিযোদ্ধা, উচ্চপদস্থ সামরিক কর্মকর্তা তাঁদেরকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানান।

১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় বাংলাদেশের অকৃত্রিমবন্ধু, প্রতিবেশী রাষ্ট্র ভারতের অবদানের প্রতি কৃতজ্ঞতাস্বরূপ ২৬ মার্চ তারিখে এই অভিযান সমাপ্তির উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। এ ধরনের আয়োজন বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যকার বিদ্যমান বন্ধুসুলভ সম্পর্ককে আরও সুদৃঢ় করতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।

৬৬ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি ও রংপুর এরিয়া কমান্ডার প্রধান অতিথির ভাষণে মহান মুক্তিযুদ্ধে ভারতীয় সেনাদের আত্মত্যাগের কথা তুলে ধরেন। এছাড়া সমাপনী অনুষ্ঠানে উভয় দেশের সাইক্লিষ্টদের প্রতিনিধি এ অভিযান সম্পর্কে তাদের অনুভূতি ব্যক্ত করেন। স্বাগত অনুষ্ঠান শেষে সাইক্লিষ্ট দল আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দের সঙ্গে রংপুর সেনানিবাসে আয়োজিত মহান স্বাধীনতা দিবসের প্রীতিভোজে অংশগ্রহণ করেন এবং এর মাধ্যমে অভিযান দলের স্বাগত অনুষ্ঠানের আনুষ্ঠানিকতা শেষ হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত