প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শিক্ষা হলো সার্বক্ষণিক একটি প্রক্রিয়া

অধ্যাপক ড. এ কে আজাদ চৌধুরী : বাংলাদেশের সরকারি কলেজগুলোতে তিন সহ¯্রাধিক পদ শূন্য। কোন কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সচল রাখার জন্য পার্ট টাইম শিক্ষক আনা হচ্ছে। কিন্তু এই পার্ট টাইম শিক্ষক দিয়ে কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয় চালানো যায় না। এ পার্ট টাইম শিক্ষক দিয়ে চালালে তাদের দায়িত্ববোধও কম থাকে। সে জানে না কালকে সে আসবে কি-না। তারা আসল, ১ ঘন্টা লেকচার দিল, তারপর চলে গেল। এরকম তো ব্যাপার হতে পারে না। শিক্ষা হল সার্বক্ষনিক ব্যাপার। এতে ছাত্ররা নামে মাত্র বলতে পারবে আমি কলেজে পড়ছি, পরীক্ষা দিচ্ছি, পাশ করেছি। কিন্তু তারা প্রকৃত শিক্ষিত হবে না।

এ তিন হাজার শিক্ষক যদি না থাকে, তাহলে কলেজ গুলো কিভাবে চলছে? কি শিক্ষাদান করছে? কি কোর্স কারিকুলাম তারা পড়াচ্ছে? এই পড়ানো নাম মাত্র। এগুলোকে সচল করতে হলে বা ডিগ্রীকে মূল্যবান করতে হলে জ্ঞানধর্মী শিক্ষাদান করতে হবে। এবং পার্মানেন্ট শিক্ষক নিয়োগ দিতে হবে। পার্ট টাইম শিক্ষক দিয়ে এটা সম্ভব নয়।

পরিচিতি : শিক্ষাবিদ ও সাবেক চেয়ারম্যান, ইউজিসি/মতামত গ্রহণ : এইচ. এম. মেহেদী/ সম্পাদনা : মোহাম্মদ আবদুল অদুদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত