প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

হলিউডের ব্যবসার হাতিয়ার অস্কার!

ইমরুল শাহেদ : ৪ মার্চ রোব্বার অনুষ্ঠিত হবে ৯০তম একাডেমি এ্যাওয়ার্ড অস্কার। সেদিন শ্রেষ্ঠ ছবি হিসেবে পুরস্কৃত হবে মাত্র একটি ছবি। কিন্তু যেসব ছবিগুলো পুরস্কারের জন্য মনোনিত হয়েছে সেগুলো গত কয়েক মাসে বিশ্বব্যাপী হাজার হাজার মিলিয়ন ডলার উপার্জন করেছে। সংবাদপত্রের স্বাধীনতা নিয়ে টুয়েন্টিয়েথ সেঞ্চুরী ফক্স থেকে নির্মিত স্টিভেন স্পিলবার্গের ‘দি পোস্ট’ সবচেয়ে বেশি অর্থ উপার্জন করেছে বলে বলা হচ্ছে। একটি সাধারণ হিসাবেই বলা হচ্ছে, ছবিটি এ পর্যন্ত উপার্জন করেছে ৯১ মিলিয়ন ডলার। ২৩ জানুয়ারি শ্রেষ্ঠ ছবি হিসেবে যে নয়টি ছবি মনোনিত হয়েছে সেদিন থেকে ছবিগুলোর যে উপার্জন শুরু হয়েছে তার ৬৩ শতাংশ এককভাবেই উপার্জন করেছে স্পিলবার্গের ছবিটি। এরপরেই নাম করা যায় ‘দি শেপ অব ওয়াটার’ ছবির। এটি এ পর্যন্ত ব্যবসা করেছে ৭২ মিলিয়ন ডলার।

অস্কারকে ব্যবসায়িক হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করাটা প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানগুলোর একটা কৌশল। তারা ছবিগুলোর নির্মাণ এবং মুক্তির সময় এমনভাবে নির্ধারণ করে যাতে তারা অস্কারের বিষয়টি প্রচারে আনতে পারে।
গত ডিসেম্বর মাসে দি শেপ অব ওয়াটার সীমিত সংখ্যক সিনেমা হলে মুক্তি দেওয়া হয়। কিন্তু অস্কার মনোনয়নের বিষয়টি ঘোষিত হয় তখন প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ফক্স সার্চলাইট সিনেমা হলের সংখ্যা বাড়িয়ে দ্বিগুণ করে ফেলে এবং প্রথম তিন দিনেই আয় প্রায় ১১১ মিলিয়ন ডলারের কাছাকাছি চলে যায়। ছবিটির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান টেলিভিশনের রাতের টক শো-গুলো এবং এনবিসির ‘দিস ইজ আস’ অনুষ্ঠানে বিজ্ঞাপনের জন্য ব্যয় করে ২.৭ মিলিয়ন ডলার।

শ্রেষ্ঠ হিসেবে বাছাই হওয়া তিনটি ছবির মধ্যে ব্যবসায়িকভাবে এগিয়ে থাকে ফক্সের ছবিটিই। এটির গ্রস আয় হয় ২৩১ মিলিয়ন ডলার।
তবে অস্কার প্রচারণার কারণে ছবিগুলোর বিক্রি কতোটা বাড়ে তা পুরোপুরি পরিস্কার নয়। ষ্টুডিও এক্সিকিউটিভরা বলছেন, সাহায্য করে। ইউনিভার্সাল পিকচার্স ইন্টারন্যাশনালের পরিবেশক কমকাস্ট কর্পোরেশনের প্রেসিডেন্ট ডানকান ক্লার্ক বলেছেন, ‘দর্শক অনেক ছবিই দেখতে পারে। তারা একটি ভালো ছবিই দেখার আশা করে।’ ক্লার্ক বলেন, ইতিহাস নির্ভর ডার্কেস্ট আওয়ার ছবিটি জানুয়ারি এবং ফেব্রুয়ারিতে মুক্তি পাবে। তাদের মনে হয়েছিল ছবিটি অস্কার মনোনয়ন পাবে।

ইউনিভার্সাল ষ্টুডিও ফিচার ফিল্ম বিভাগের কথা মাথা রেখেই ছবিটি আন্তর্জাতিক বাজারে মুক্তি দিয়ে দেওয়া হয়। তবে মনোনয়ন পাওয়ার পর থেকেই ছবিটি ৫৮ মিলিয়ন ডলার আয় করেছে। এই ছবিটিতে জাপানের মেক-আপ আর্টিস্ট কাজুহিরো টিসুজি কাজ করেছেন। তার প্রশংসা করেছেন অভিনেতা গ্যারি ওল্ডম্যান। এই মেক-আপ আর্টিস্ট তাকে নিখুঁতভাবেই ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী উইন্টন চার্চিল বানাতে পেরেছেন এবং এজন্য কাজুহিরো বাফটা পুরস্কারও পেয়েছেন। তিনি অস্কার মনোনয়নও পেয়েছেন। ডার্কেস্ট আওয়ার গত মার্চে জাপানে মুক্তি পায় এবং উপার্জন করে ১৩৬ মিলিয়ন ডলার। এই সময়ে দি পোস্ট উপার্জন করেছে মাত্র ১৪৬ মিলিয়ন ডলার। সূত্র : ইয়ন টিভি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত