প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রৌমারীতে দুই মাস ধরে নিখোঁজ চাঁদনী

সৌরভ কুমার ঘোষ, কুড়িগ্রাম: কুড়িগ্রামের রৌমারীর বারবান্দা নামাপাড়া গ্রামে চাঁদনী আক্তার (৫) নামের এক শিশু গত দুই মাস ধরে নিখোঁজ রয়েছে। গত ২৪ ডিসেম্বর বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফিরে আসেনি সে। চাঁদনী উপজেলার রৌমারী ইউনিয়নের বারবান্দা নামাপাড়া গ্রামের আইয়ুব আলী ও সমেরজান বেগম দম্পতির একমাত্র কন্যা। নিখোঁজ শিশু চাদঁনী উত্তর বারবান্দা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশু শ্রেণীর ছাত্রী।

নিখোঁজ চাঁদনী চাচা রঞ্জু মিয়া জানান, দীর্ঘদিন ধরে তাঁর বাবা ঢাকায় চলে যাওয়ার পর থেকেই সে তাঁর নিজ বাড়িতে তাঁর মায়ের সঙ্গে থাকত। গত ২৪ ডিসেম্বর বিকালে শিশু চাঁদনী বাড়ি থেকে বের হয়ে পাশের সমেজের বাড়িতে খেলতে যায়। পরে চাঁদনী রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হয়। এ ঘটনায় শিশুটির চাচা রঞ্জু মিয়া রৌমারী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। দীর্ঘ দুই মাস অতিবাহিত হওয়ার পরও নিখোঁজ চাঁদনী আক্তারের কোনো সন্ধান মিলছে না।

চাঁদনীর চাচা রঞ্জু মিয়ার আশঙ্কা, পারিবারিক শত্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষের লোকজন চাঁদনীকে হত্যা করে লাশ গুম অথবা টাকার লোভে অন্য যায়গায় তাঁকে বিক্রি করেও দিতে পারে। শিশুটি নিখোঁজের দিন প্রতিবেশি সমেজ নামের ব্যক্তির বাড়িতে প্রতিদিনের মতো তাঁর (সমেজের সন্তান) দুই শিশু ইয়াছমিন ও রাজু এবং নিখোঁজ শিশু চাঁদনীর সঙ্গে খেলাধুলা করতো। চাঁদনীকে অনেকেই খেলতে দেখেছেন বলেও দাবি করেন তিনি।

এ প্রসঙ্গে রৌমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহাঙ্গীর আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘শিশুটির নিখোঁজের বিষয়টি সব থানায় বার্তা দিয়ে জানানো হয়েছে। তাকে উদ্ধারে পুলিশ অনুসন্ধান চালিয়ে যাচ্ছে।’

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ