প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

অবৈধ মোটরসাইকেল আমদানিকারকদের বিরুদ্ধে অভিযানে নেমেছে পুলিশ

সাইদ রিপন : গত জানুয়ারি মাসে ইয়ামাহা ব্র্যান্ডের মোটরসাইকেল আমদানি ও বাজারজাত করনের জন্য এসিআই লিমিটেডকে বৈধ প্রতিষ্ঠান হিসেবে ঘোষণা করে আদালত। এবং অন্যান্য যেসব প্রতিষ্ঠান এ মটরসাইকেল আমদানি করে তাদের অবৈধ ঘোষণা করা হয়। আদালতের নির্দেশের প্রেক্ষিতে গত দুই দিনে রমনা থানা পুলিশ রাজধানীর বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে অভিযান করেছে।

এ বিষয়ে রমনা থানার এডিসি এডিসি আজিমুল হক জানিয়েছেন, অবৈধ আমদানিকৃত মোটরসাইকেল দিয়ে অপরাধমূলক কাজে বেশি ব্যবহার করা হয়। আর পরবর্তীতে অপরাধমূলক কার্যক্রম হলে চিহ্নিত করতে অসুবিধায় হয়। এজন্য আমরা প্রতিনিয়তই অবৈধ আমদানিকারকদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করছি। গত কয়েকদিনও থানা এলাকায় বেশ কিছু অভিযান পরিচালনা করেছি। সামনের দিনে আরো অভিযান পরিচলালনা করবো।

জানা গেছে, এসিআই লিমিটেডের প্রচলিত মডেলের বাইরে এফজেডএস এফআই ভি ২.০ এবং ফেজার এফআই ভি ২.০ মডেলের মোটরসাইকেল দেশের বাজারে বিপনন করা হচ্ছে। এসব মডেলের মোটরসাইকেলের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান আমদানি করছে, যারা বৈধ আমদানিকারক নয়। এর পরিপ্রেেিত এসিআই লিমিটেড আদালতে আবেদন করেন। প্রতিষ্ঠানটির আবেদনের পরিপ্রেেিত যাচাই বাছাই করে আদালত পাঁচটি প্রতিষ্ঠান পুশ ইন্টারন্যাশনাল, নিউ সোনারগাঁ মোটরস, আরএন এন্টারপ্রাইজ, পোলারিস টেক লিমিটেড, পাওয়ারপ্যাক ইন্টারন্যাশনালকে ইয়ামাহা মোটরসাইকেল আমদানি ও বিপননের ক্ষেত্রে অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। সকল অবৈধ আমদানিকারক কর্তৃক আমদানিকৃত ইয়ামাহা মটর সাইকেল বাজারজাত, রেজিষ্ট্রেশন, মেকার্স কোড ও টাইপ অনুমোদন বাতিল ঘোষনা করে বিজ্ঞ আদালত নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। এ বিষয়ে রমনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শফিকুল ইসলাম জানান, আদালত কর্তৃক নিষেধাজ্ঞাকৃত যে কয়েকটি প্রতিষ্ঠান রয়েছে তারমধ্যে রমনা থানা এলাকায় তিনটি প্রতিষ্ঠান আছে। আমরা এসব প্রতিষ্ঠানে যাওয়া শুরু করেছি। আদালতের মাধ্যমে বিষয়টি মেটানো হবে বলে এসব প্রতিষ্ঠান আমাদেরকে জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য, বৈধ আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান সঠিক মূল্য প্রদর্শন করে দেড়শ শতাংশের বেশি শুল্ক প্রদান করে মোটরসাইকেল আমদানি করে। কিন্তু অবৈধ আমদানিকারকরা কম মূল্য দেখিয়ে সরকারের রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে ভোক্তাদের প্রতারিত করে। আবার ক্রেতারা কেনার পর সার্ভিস নেবার সময় সঠিক সময়ে সঠিক সার্ভিসটি পায় না। এমনকি প্রচলিত মডেল না হবার কারনে সঠিক যন্ত্রাংশও পাওয়া যায় না। অনেক সময় অনুমোদিতের চেয়ে বেশি সিসি ও গতির মোটরসাইকেলও আনা হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত